সঙ্কটে পুরুষকুল৷পুরুষতান্ত্রিক সমাজে  খর্ব হচ্ছে পুরুষে অধিকার৷ ভারতের মতো ঐতিহ্যশালী দেশে পুরুষতন্ত্রের এহেন দুর্দশা কতোদিন আর বরদাস্ত করা যায়৷ধর্ষণ, বিবাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, বধূনির্যাতন, সন্ত্রাস, খুন, ডাকাতি অপরাধের সীমা পরিসীমা নেই৷ সবেতেই আইনের জালে জর্জরিত পুরুষকুল৷ সহ্যের সীমা ছাড়িয়েছে৷অধিকার রক্ষায় শেষমেশ পৃথক পুরুষ উন্নয়ন মন্ত্রক তৈরির দাবি জানাল এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷ তাঁদের দাবি বিভিন্ন আইনের মাধ্যমে সহজেই দেশের পুরুষদের ফাঁসানো হচ্ছে বলে দাবি সেই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের৷ হৃদয়া নামে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের  সহৃদয়তার  সঙ্গে  বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখার আবেদন জানিয়েছে৷ পুরুষ অধিকার সম্পর্কে সচেতনতা প্রচারে আগামী ১৯ নভেম্বর আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস পালন করবেন বলে জানিয়েছেন হৃদয়ার সম্পাদক অমিত গুপ্তা৷ নিজেদের দাবির সমর্থনে বেশ কিছু তথ্যও দিয়েছেন অমিত গুপ্তা৷তাঁর দাবি বধূ নির্যাতন, ধর্ষণ, যৌন হেনস্থার অজুহাতে একাধিক পুরুষকে হাজতে পুরছে ভারতের নারীকূল৷ এহেন অপমান আর কতোদিন বরদাস্ত করবে পুরুষ সমাজ৷ তাদের পাল্টা দাবি, ভারতের প্রাত ৮৩ শতাংশ পুরুষ নিজ গৃহে নির্যাতনের স্বীকার হন৷ সংগঠনের সভাপতি ডিএস রাওয়ের দাবি, পুরুষের অধিকার রক্ষায় শীঘ্রই আইন প্রণয়ন করা উচিত৷ যে আইন গৃহস্থে এবং কর্মস্থলে  পুরুষকুলকে যাবতীয় মানসিক, অর্থনৈতিক, শারীরিক, যৌন নির্যাতন থেকে  রক্ষা করবে৷

----
--