তেহরান:  তেহরানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করলেও ইরানের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক রক্ষার জন্য জার্মানির কোম্পানিগুলো সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছে। এমনটাই জানাল ইরান। জার্মান-ইরান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সভাপতি আব্বাস আলী কাসাইজাদেহরকে কোট করে এমনটাই জানাচ্ছে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম। খবরে বলা হচ্ছে- ইরানের ওপর থেকে ২০১৬ সালে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর তেহরানের সঙ্গে বার্লিনের বাণিজ্যের পরিমাণ বেড়েছে।

‌কাসাইজাদেহ জোর দিয়ে বলেন, ২০১৬ সালের পর জার্মানির বহু সংখ্যক বাণিজ্য প্রতিনিধিদল নতুন ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য তেহরান সফর করেছে। এই ঘটনা এটাই প্রমাণ করে যে, তেহরানের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে বার্লিন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে পরমাণু সমঝোত সই হওয়ার আগে তেহরান এবং বার্লিনের মধ্যে বার্ষিক বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল আড়াইশ কোটি ইউরো। কিন্তু পরমাণু সমঝোতা সইয়ের পর বাণিজ্যের পরিমাণ পাঁচশ থেকে ছয়শ ইউরোতে গিয়ে ঠেকেছে।

কাসাইজাদেহ জানান, জার্মানি হচ্ছে ইউরোপীয় দেশগুলোর মধ্যে ইরানের প্রধান বাণিজ্যিক অংশীদার এবং সারা বিশ্বে তৃতীয়। বিশ্বে ইরানের সঙ্গে সবচেয়ে বেশি বাণিজ্য রয়েছে চিনের, তারপরেই সংযুক্ত আরব আমিরাতের। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে জার্মানি। ইরান থেকে জার্মানিতে যায় তেল ও তেলজাত পণ্য এবং গ্যাস; অন্যদিকে জার্মানি থেকে ইরানে আসে প্রধানত শিল্পজাত পণ্য।

----
--