জায়গা জটেই মউ স্বাক্ষর হল নতুন ভবন তৈরির

জায়গা ঠিক না করেই ভবন নির্মানের জন্য মউ স্বাক্ষর করল বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ২০১০ সালে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গোল্ডেন জুবলি বিল্ডিং তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজবাটি এলাকায় প্রশাসনিক ক্যাম্পাসে রাজআমলের ভবনের পাশেই নতুন ১০ তলা ভবনটি তৈরি করা হবে। প্রতি তলা হবে ১০ হাজার বর্গ মিটারের। তৈরির আনুমানিক খরচ ঠিক হয় ২৩ কোটি টাকা। এই টাকা রাজ্য সরকার দেবে বলে ঠিক হয়।
বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে উপাচার্যর কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে ম্যাকিন্টোস বার্ণ লিমিটেডের মউ স্বাক্ষর হয়। পুজোর পরেই প্রাথমিকভাবে ভাবে গ্রাউন্ড ফ্লোর নিয়ে চার তলা তৈরির কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য স্মৃতি কুমার সরকার।
প্রথম পর্বের কাজের জন্য বরাদ্দ হয়েছে ১২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। এক বছরের মধ্যে প্রথম পর্বের কাজ শেষ হবে। বৃহস্পতিবার মউ চুক্তি হলেও ভবন কোথায় হবে তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরী হয়েছে। জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে পুরানো ভবন তথা ১৬২ বছরের রাজবাড়ির পাশেই এই ভবন তৈরীর পরিকল্পনা করা হলেও ২০১৩ সালের ২৯ এপ্রিল আর্কেওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া রাজ বাড়িটিকে হেরিটেজ ঘোষণা করে। এরপরই তৈরী হয় জমি নিয়ে জটিলতা। শুরু হয় নতুন জায়গা নির্বাচন করার কাজ। যা এখনও সফল হয়নি।
এই বিষয়ে উপাচার্য জানিয়েছেন বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে জায়গা চিহ্নিত করাটা কোনও ব্যাপার নয়। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলাপবাগ ক্যাম্পাস সহ নানা জায়গায় যথেষ্ট জমি রয়েছে। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই জমি চিহ্নিত করে কাজ সম্পূর্ণ করা হবে। নতুন ভবনে প্রশাসনিক বিভাগ গুলির পাশাপাশি কয়েকটি অ্যাকাডেমিক বিভাগও থাকবে। এদিনের চুক্তি পর্বে উপাচার্য ছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রর শ্রীপতি মুখার্জী, ফিনান্স অফিসার পার্থ নারায়ণ ঘোষ, ম্যাকিন্টোস বার্ণ লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার শম্ভু ব্যানার্জী, সুমিতাভ ঘোষ এবং প্রজেক্ট ম্যানেজার আশীষ পাত্র।

Advertisement ---
---
-----