ঢাকা:  ডিসেম্বরেই দেশে জাতীয় নির্বাচন! তার আগেই জাতপাতের রাজনীতি বাংলাদেশে। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপির জয়ের পর সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিষয়টি তুলে ধরে আগামী নির্বাচন নিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়কে সতর্ক করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এখনও নির্বাচনের মাসখানেক বাকি। তার আগেই এভাবে হিন্দুদের উদ্দেশ্যে সতর্কবার্তা কাদেরর।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “আপনাদের কি ২০০১ সালের কথা মনে আছে? ২০০১ সালে বিএনপির নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক শক্তি ক্ষমতায় এলে বিভীষিকা আর অন্ধকার নেমে আসে, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা সারা বাংলায় নিপীড়িত হয়, নির্যাতিত হয়, ধর্ষিত হয়, ফাহিমা-পূর্ণিমা। এদের কথা কি আপনাদের মনে আছে? কত হিন্দু রমণীকে পৈশাচিকভাবে ধর্ষণ করেছে ওই বর্বর শক্তি। নিরীহ মানুষের উপর নির্যাতন চালিয়ে ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। “মনে আছে আপনাদের সেই নির্যাতনের কথা। এবার যদি সেই অপশক্তি আবার ক্ষমতায় আসতে পারে ২০০১ সালের চেয়েও ভয়াবহ রক্তাক্ত সময় আপনাদের জন্য ঘনিয়ে আসবে।”

আওয়ামী লীগের পাঁচ বছরের দেশ শাসনের পর ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত সরকার গঠনের পর সারাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর নির্যাতন চালানো হয়। ওই নির্যাতনের মদদদাতা হিসেবে বিএনপি-জামায়াত জোটের বিভিন্ন নেতার নাম পরে তদন্তে উঠে আসে। এবার ভোটের আগেও হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর আক্রমণ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আর সেজন্যে সে দেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের সতর্ক থাকার পরামর্শ তাঁর। কাদেরের দাবি, নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্রে হিন্দুদের উপর নির্যাতন চালাবে। দুর্বল ভেবে আপনাদের উপর আঘাত দেবে। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যে সুসম্পর্ক বিরাজমান, সেই সুসম্পর্ক বিনষ্টের চক্রান্ত করবে।

----
--