মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ক্লাবগুলিকে জোট বাঁধার বার্তা মমতার

কলকাতা:  দুর্গাপুজোগুলিকে আয়কর নোটিশের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বুধবার যাত্রা উৎসবের সূচনা করেন তিনি। সেখানে দাঁড়িয়ে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন। তিনি কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, দুর্গাপুজো কমিটিগুলির গায়ে হাত পড়লে ছেড়ে কথা বলা হবে না। আর এই ব্যাপারে সমস্ত দুর্গাপুজো ক্লাবগুলিকে একজোট হওয়ার জন্যে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ, একটা টাকাও দেবেন না।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দুর্গাপুজো করলেও নোটিশ ধরানো হচ্ছে। পুজো তো ধর্মীয় অনুষ্ঠান। এখানেই মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, এখানে আবার কীসের ইনকাম ট্যাক্স? বাংলায় কি দুর্গাপুজো বন্ধ করতে চাইছে সরকার? প্রশ্ন মমতার। আর তা বলতে গিয়েই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে বলেন, একটা ক্লাবের গায়ে হাত পড়লে কেউ ছেড়ে কথা বলব না। সব ক্লাব জোট বাঁধুন। কবে এসে বলবে, রোজা করলেও ইনকাম ট্যাক্স দিতে হবে। সবাই আয়কর দেবে, আর ওঁরা জনগণের আয় লুটে নেবে।

বাংলায় সবথেকে উৎসব পার্বন দুর্গাপুজো। গোটা বছর এই পুজোর জন্যে অপেক্ষা করে থাকে বাংলার মানুষ। সম্প্রতি যে সমস্ত পুজো সরকারি অনুদান পায় সেই সমস্ত পুজো কমিটিগুলিকে আয়কর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের এহেন নির্দেশেই ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সমস্ত পুজো কমিটিগুলি অলাভজনক সংস্থা। এরা সমাজসেবাও করে। বিজেপির ধর্মীয় রাজনীতির বিরুদ্ধে মমতার তোপ, “আগে জ্বালিয়েছে বাম। এখন জুটেছে নাটুকে রাম। রামের নাম করে আমাদের ধর্ম শেখাচ্ছে!” সংরক্ষণের নামে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার নয়া নাটক করছে বলে আক্রমণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, শহরের নামকরা ৪০টি পুজো কমিটিকে নোটিশ ধরিয়েছে আয়কর দফতর। আগামী সোম ও মঙ্গলবার ওই পুজো কমিটির কর্তাদের সঙ্গে পুজোর খরচ নিয়ে সবিস্তারে আলোচনার জন্য আয়করভবনে তলব করেছে আয়কর দফতর।

আয়কর দফতরের অভিযোগ, ২০১৪ সালে রাজ্যর পুজোগুলিতে খরচ হয়েছে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা। তাদের মধ্যে দু-একটি কমিটি মাত্র টিডিএস জমা দিয়েছেন। বেশিরভাগ পুজো কমিটিই টিডিএস ফাঁকি দিচ্ছেন। কিন্তু হিসেব বলছে খরচের ১০ শতাংশ টিডিএস হিসেবে আয়কর দফতরের পাওয়ার কথা। সেক্ষেত্রে রাজ্যের পাওনা একশো কোটির কাছাকাছি।

আয়কর দফতরের এহেন নির্দেশিকাতেই চরম ক্ষুব্ধ মমতা।

----