ইসলামাবাদ: পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে পাক সেনাপ্রধানকে আলিঙ্গন করে দেশে প্রবলভাবে সমালোচিত হয়েছিলেন নভজ্যোত সিং সিধু৷ তাদের এবার জবাব দিলেন পঞ্জাব মন্ত্রিসভার এই সদস্য৷ পাকিস্তানের মাটিতে দাঁড়িয়ে মঙ্গলবার সমালোচকদের সিধুর খোঁচা,‘‘আলিঙ্গন করা পঞ্জাবীদের রীতি৷ আর সেই আলিঙ্গনের স্থায়িত্ব ছিল মাত্র কয়েক সেকেন্ড৷ সেটা রাফায়েল চুক্তি ছিল না৷’’

রাজনৈতিক মহলের মতে, এই মন্তব্য করে পরিণতমস্তিস্কের রাজনীতিবিদের পরিচয় দিয়েছেন সিধু৷ এক ঢিলে দুই পাখি মারার কায়দায় রাফায়েল ইস্যু খুঁচিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগেন৷ আবার কংগ্রেসীদের মধ্যে যারা তাঁর এই পাকিস্তান সফর নিয়ে অসন্তোষ ছিলেন রাফায়েল নিয়ে মন্তব্য করে তাদের অসন্তোষে কিছুটা হলেও জল ঢেলে দেন৷

যথারীতি সিধুর মন্তব্যের ক্ষুব্ধ হয় বিজেপি৷ ট্যুইট করে জানিয়েছে, কংগ্রেসের মধ্যে উন্মাদ রোগ সংক্রমণের চেহারা নিয়েছে৷ রাফায়েল নিয়ে রাহুল গান্ধীর মিথ্যাচারকে সিধু বহন করে পাকিস্তান নিয়ে গিয়েছে৷ সেখানে তিনি বন্ধু খুঁজে পেয়েছেন৷

কর্তারপুর করিডরের উদ্বোধনে ‘বন্ধু’ ইমরান খানের ডাকে সাড়া দিয়ে পাকিস্তান গিয়েছেন সিধু৷ সেখানে তিনি জানান, এই করিডর দুই দেশের মধ্যে সৌহার্দ্যের সেতু হিসাবে কাজ করবে৷ মানুষের সঙ্গে মানুষের যোগাযোগ বাড়াবে এবং শান্তি ফিরিয়ে আনাবে৷ এই করিডর উদ্বোধনে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ও পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং৷ দু’জনেই সেই আমন্ত্রণ প্রত্যাখান করেন৷

সুষমা জানান, ভোট প্রচারে তেলেঙ্গানায় ব্যস্ত থাকবেন৷ অপরদিকে রাখঢাক না করে অমরিন্দর জানান, পাক সেনারা প্রতিনিয়ত সীমান্তে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে চলেছে৷ আইএসআই মদতপুষ্ট জঙ্গিরা পঞ্জাবকে অশান্ত করে তুলতে চাইছে৷ তাই এই পরিস্থিতিতে তাঁর পাকিস্তান যাওয়া সমীচিন নয় বলে জানিয়েছেন৷

--
----
--