রাঁচি: ঝাড়খণ্ডের দেওঘরে বৈদ্যনাথ মন্দিরে পুজো দিতে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল ১১ জনের। আহত হয়েছেন প্রায় ২০ জন। সোমবার ভোরে ঘটনাটি ঘটে দুর্গা মন্দিরের কাছে। শ্রাবণ মাস চলায় গতকাল, রবিবার রাত থেকেই পুজো দেওয়ার জন্য মন্দির চত্বরের আশপাশে প্রায় এক লাখ পূণ্যার্থী হাজির হন। এ দিন ভোরের আলো ফুটতেই লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়ে যায়। মন্দিরের গেট খোলা মাত্রই বাধে বিপত্তি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। ঘটনাস্থলে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্মীরা পরিস্থিতি আয়ত্তে লাঠি চার্জ করে বলে অভিযোগ। তখনই হুড়োহুড়ির মধ্যে পড়ে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে এক মহিলা-সহ ১১ জনের মৃত্যু হয়। ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ডিআইজি ডি বি শর্মা বলেন, “শ্রাবণ মাসের সোমবারের ভিড় সামলাতে আগে থেকেই প্রচুর পুলিশকর্মী মোতায়েন করা হয়েছিল। ঘটনাটি সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। আহতদের চিকিত্সার জন্য হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।” দেওঘরের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার জানান, প্রচুর মানুষের জমায়েত হওয়ার আশঙ্কায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার আয়োজন করা হয়েছিল। হঠাত্ করে এমন অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটে গেল। মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস এই দুর্ঘটনার জন্য সমবেদনা জানিয়েছেন। পাশাপাশি পুলিশ ও প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় সমস্ত রকম ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন। এবারই প্রথম নয়, ২০১২-য় পুজো দিতে এসে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় ৯ জনের এবং আহত হয়েছিলেন প্রায় ৩০ জন।

Advertisement

 

----
--