১২ বছরের ‘বিস্ময় বালক’ উপস্থিত আন্তর্জাতিক সেমিনারে

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: মাত্র ১২ বছর বয়সেই ‘বিস্ময় বালক’-এর উপাধি তার ঝুলিতে৷ তৈরি করেছে একটি জাহাজের মডেল৷ সেই জাহাজ সমুদ্রে থাকা বর্জ্য পরিষ্কার করবে৷ তাঁর এই কাজের জন্য সে আগে পাড়ি দিয়েছে বিদেশে৷ এবার সে উপস্থিত হল জলপাইগুড়িতে৷

জলপাইগুড়ি গভর্নমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে অনুষ্ঠিত হয় একটি সেমিনার৷ সেখানেই উপস্থিত ছিল এই বিস্ময় বালক হাজিক কাজি৷ সেখানেই সে তাঁর এই জাহাজ মডেল তৈরির অভিজ্ঞতার কথা শোনাল৷ তার সেই কথা বাকরুদ্ধ হয়ে শুনলেন আগামীর ইঞ্জিনিয়ার পড়ুয়ারা৷

উত্তরপূর্ব ভারতে কলেজগুলির মধ্যে এই ধরনের সেমিনার প্রথম। এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন টেকনিক্যাল এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড ডিজাইন শাখা৷ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দেশের বিভিন্ন কলেজের টেকনিক্যাল এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড ডিজাইনারের পড়ুয়ারা।

- Advertisement -

আরও পড়ুন : মাধ্যমিকের প্রথম দিনেই প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ

কলেজের প্রিন্সিপাল অমিতাভ রায় বলেন, ‘‘এই ধরণের অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ আমাদের ছাত্র ছাত্রীদের স্কিল ডেভলপমেন্ট৷ পাশাপাশি আমাদের পড়ুয়ারা যাতে ভবিষ্যতে যব সিকারের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে তারা নিজেরাই যব প্রোভাইডার হতে পারে। তাই আজ হাজিক কাজি, শর্মিলা চানু, অলকানন্দা রায় সহ দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রের নয় জন দিকপাল আমাদের কলেজের আমন্ত্রণে সারা দিয়ে যোগ দিয়েছেন। পড়ুয়ারা তাদের মূল্যবান বক্তব্য শুনে নিজেদের জীবনে কাজে লাগাতে পারবে। এই অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত।’’

হাজিক কাজি জানায়, সে একটি জাহাজের মডেল তৈরি করেছে। সেই জাহাজ সমুদ্রে থাকা বর্জ্য পরিষ্কার করবে। এটা তার পাঁচ নং কনফারেন্স। এর আগে নিউইয়র্ক, ব্যাঙ্গালোর প্রভৃতি জায়গায় আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিয়েছে সে।

অয়ন দেব নামে এক ছাত্রের মতে, টেডেক্স একটি আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্ম। সমাজের বিভিন্ন স্তরের দিকপালের সাফল্যের কথা তাদের মুখ থেকে শুনলাম। এতে আমরা আমাদের জীবনে ভবিষ্যতের জন্য কাজে লাগাতে পারব বলে আসা রাখছি।