চলতি বছর জঙ্গি দমন অভিযানে খতম ১৪২ জঙ্গি

শ্রীনগর: চলতি বছর উপত্যকায় জঙ্গি দমন অভিযানে খতম করা হয়েছে ১৪২ জন জঙ্গিকে৷ শুক্রবার জানালেন সিআরপিএফের ডিরেক্টর জেনারেল আর আর ভাটনগর৷ প্রায় দেড়শো জঙ্গিকে নিকেশ করা গেলেও কাশ্মীরে এখনও সক্রিয় ২০০ থেকে ২৫০ জঙ্গি৷

তবে আগের থেকে কাশ্মীরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে বলে দাবি করেন আর আর ভাটনগর৷ ২০১৬-১৭ সালের পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে একথা জানান সিআরপিএফের ডিরেক্টর জেনারেল৷ তবে আইনের শাসন ফিরলেও প্রশাসনের চিন্তা বাড়িয়েছে কাশ্মীরিদের যুবাদের মধ্যে জঙ্গি সংগঠনে নাম লেখানোর প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায়৷

এই প্রসঙ্গে আর আর ভাটনগর জানান, যুবাদের জঙ্গি সংগঠন থেকে দুরে রাখতে সেনার তরফে ‘মদতগার’ নামে হেল্প লাইন চালু করা হয়েছে৷ এই হেল্প লাইনের মাধ্যমে কাশ্মীরি যুবাদের কাউন্সেলিং করা হয়৷ গত বছর আড়াই লক্ষ ফোন এসেছে মদতগারে৷ আড়াই হাজার মানুষের কাছে সাহায্য পৌঁছে গিয়েছে৷ বিপথে যাওয়া কাশ্মীরিদের সমাজের মূলস্রোতে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা সবসময় জারি থাকবে৷

ইদানিং কাশ্মীরে শুরু হয়েছে নয়া ট্রেন্ড৷ নিরস্ত্র অবস্থায় নিরাপত্তা বাহিনী ও পুলিশ কর্মীদের অপহরণ করে অথবা তাদের বাড়ি ঢুকে খুন করছে জঙ্গিরা৷ সিআরপিএফের ডিরেক্টর জেনারেল জানান, জঙ্গিরা হতাশাগ্রস্ত হয়ে এই কাজ করছে৷ তবে এই ধরনের ঘটনা বাহিনীকে সন্ত্রাসবাদ খতম করতে আরও দৃঢ় সংকল্প করে তোলে৷ অভয় দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘নিরাপত্তা কর্মীরা অনেক সুরক্ষিত৷ আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে৷ আগামী দিনে নিরাপত্তা বাহিনী আইনশৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে আরও ভালো কাজ করবে৷’’

তবে জঙ্গি দমন অভিযান চালাতে গিয়ে অনেক সময় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয় নিরাপত্তা বাহিনীকে৷ তার একটি জওয়ানদের লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়ে মারার ঘটনা৷ ভাটনগর মেনে নিয়েছেন বিষয়টি চ্যালেঞ্জের৷ তবে নিরাপত্তা বাহিনী দক্ষতার সঙ্গে সেই পরিস্থিতির মোকাবিলা করে৷

Advertisement
----
-----