১৫ বছরেই ইঞ্জিনিয়র ভারতীয় বংশোদ্ভুত এই ছেলে!

ক্যালিফোর্ণিয়া: বছর ১৫-এর একটা ছেলে৷ দেখতে সাধারণ৷ আপাত দৃষ্টিতে দেখে কি ভাববেন? বড়জোড় ক্লাস টেনে পড়ে? তাই তো? তবে এই ছেলের বায়োডেটা আপনার মাথা ঘুরিয়ে দেবে!

১৫ বছর বয়েসেই ভারতীয় বংশোদ্ভুত তনিশক আব্রাহম একজন ইঞ্জিনিয়র! অবাক হবেন না৷ এরই সাথে তাঁর রয়েছে ডক্টরেট ডিগ্রি. নিজের পড়াশুনার ক্ষেত্রে এখনই একের পর এক মাইলফলক ছুঁয়ে চলেছে তনিশক৷ বায়ো মেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ইতিমধ্যেই পিএইচডি করে ফেলেছে সে৷

ক্যালিফোর্ণিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ছাত্র চোখধাঁধানো নম্বর নিয়ে পিএইচডি করে ফেলেছে৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্ব তনিশক সবার নজর কেড়েছে৷ সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে তনিশক বলে অবশ্যই খুশি সে৷ আরও বেশি খুশি নিজের পছন্দের বিষয়ে পড়াশুনার করার সুযোগ পেয়ে৷

আদতে কেরালার বাসিন্দা তার অভিভাবকরা জানাচ্ছেন অনেক স্বপ্ন নিয়ে বায়েমেডিক্যাল বিষয়টি বেছেছে তনিশক৷ তাঁরা সবসময় ছেলের সঙ্গে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন তাজি ও বিজৌও আব্রাহাম৷

এরই মধ্যে একটি আবিষ্কার করে ফেলেছে তনিশক৷ অগ্নিদগ্ধ ব্যক্তিকে না ছুঁয়েই তাঁর হৃদস্পন্দন মাপার যন্ত্র আবিষ্কার করেছে সে৷ ভবিষত্যে চিকিৎসা বিজ্ঞানে তাঁর তৈরি যন্ত্র ব্যবহার হবে বলে আশা করছে সে৷ এর পর নিজেকে বিভিন্ন ধরণের গবেষণায় যুক্ত রাখতে চায় সে, জানিয়েছে তনিশক৷

তাঁর প্রধান লক্ষ্য ক্যান্সার রোগীদের নিরাময় করা৷ সেই লক্ষ্যেই আপাতত গবেষণা চালাচ্ছে তনিশক৷ আরও কার্যকর ও অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে যাতে ক্যান্সার রোগীদের চিকিৎসা করা যায়, সেই গবেষণা চলছে তনিশকের হাত ধরে৷

----
-----