মিলল ছাড়পত্র, হজ যাত্রায় একা যেতে পারবেন মহিলারা

নয়াদিল্লি: একেই বোধহয় বলে স্বপ্নের বাস্তবায়ন৷ এই প্রথম হজে মহিলাদের একা যাওয়ার অনুমতি দিল ভারতের হজ কমিটি৷ তাই এই প্রথম হজ যাত্রায় একা সফর করতে পারবেন ভারতীয় মুসলিম মহিলারা৷
এরআেগ, হজ কমিটি জানায়, ৪৫ বছরের ওপর বয়েসী মহিলারা হজে যেতে পারবেন, তবে সঙ্গে একজন পুরুষ সঙ্গী থাকতে হবে৷ সেই শর্ত উঠে গেল মহিলাদের ওপর থেকে৷ এরপরেই মহারাষ্ট্র থেকে মুসলিম মহিলারা অপেক্ষায় রয়েছেন একা হজে যাওয়ার জন্য৷

৬২ বছরের শামসাদাবাই ইসারেল সায়েদ নিজের স্বামীর সঙ্গে হজে যাবেন বলে স্থির করেছিলেন৷ কিন্তু আচমকাই মৃত্যু হয় স্বামীর৷ তারপর তাঁর হজে যাওয়ার পরিকল্পনা প্রায় বাতিল হতে বসেছিল৷ কিন্তু হজ কমিটির এই সিদ্ধান্ত তাঁকে নতুন করে স্বপ্ন দেখাচ্ছে৷ চারজন মহিলার একটি দলে নিজেকে ভিড়িয়ে নিয়েছেন তিনি৷

তবে প্রথম বার হজে একা মহিলারা, তারা নিজেরাই কিছুটা দ্বন্দ্বে রয়েছেন যে সমাজ এই নতুন বিষয়টিকে কিভাবে নেবে? কারণ প্রথা ভাঙা সহজ নয়৷ তবে হেরে যাচ্ছেন না তাঁরা৷ সমাজের সামনে নজির গড়তে এগিয়ে আসছেন এই মহিলাদের দল৷

- Advertisement -

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, হজে যাওয়ার জন্য মুসলিম মহিলাদের পুরুষ অভিভাবকের প্রয়োজন। ইসলামের সেই বিধানকে আর এখন মান্যতা দেয়না কেন্দ্র। মন কি বাত অনুষ্ঠানে এমনই বার্তা দেন তিনি৷ ১৩০০ জন মুসলিম মহিলা পুরুষ অভিভাবক ছাড়া হজে যাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন বলে প্রধানমন্ত্রী জানান৷ কেন্দ্রের পর্যবেক্ষণ, যদি কোনও মুসলিম মহিলা হজে যেতে চান, তবে তাঁকে পুরুষ সঙ্গী বা অভিভাবকের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। এই নিয়মের পালন করার অর্থ অন্যায় ও লিঙ্গবৈষম্যকে সমর্থন করা, একে মানা যায়না বলে এদিন তাঁর বক্তব্যে জানান মোদী।

হজযাত্রার জন্য একটি বিশেষ লটারি ব্যবস্থা রয়েছে। সেই লটারির মাধ্যমে যাত্রীদের বেছে নেওয়া হয়। মোদী জানিয়েছেন, কোনও মুসলিম মহিলা যদি একা হজে যাওয়ার আবেদন করেন, তবে তাঁকে এই লটারি ব্যবস্থায় যোগ দিতে হবে না।

হজ পর্যালোচনা কমিটির প্রধান আফজাল আমানুল্লা দাবি করেছিলেন, এই নীতি বাস্তবায়নের জন্য তারা ইতিমধ্যেই সৌদি আরব কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতিও পেয়েছেন, ফলে আগামী বছর থেকে ৪৫ বছরের ঊর্ধ্বে মহিলাদের কোনও দল যদি হজে যেতে চান, তাদের সৌদি ভিসা পেতে কোনও সমস্যা হবে না।

Advertisement
-----