বিজয় দিবসের স্মৃতি রোমন্থনে বাংলাদেশ যাচ্ছেন প্রাক্তন ভারতীয় সেনানীরা

আত্মসমর্পণকারী পাক সেনারা৷ ফাইল ছবি

কলকাতা: ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর৷ আজও ইতিহাসের পাতায় দিনটি জ্বলজ্বল করছে৷ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের লক্ষ লক্ষ মানুষ স্বাধীনতার জন্য পাকিস্তান সেনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন৷ ভয়াবহ সেই সংঘর্ষের সময় ভারত পাশে দাঁড়িয়েছিল৷ ১৬ ডিসেম্বর দিনেই ঢাকায় ৯০ হাজারের বেশি পাক সেনা ভারতীয় সেনার সামনে আত্মসমর্পণ করে৷ দিনটি বিজয় দিবস হিসেবে পরিচিত৷ প্রতি বছর দিনটি ভারত ও বাংলাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়৷ এবারও ’৭১র যুদ্ধে অংশ নেওয়া ২৭জন প্রাক্তন ভারতীয় সেনা এই দিনটি উপলক্ষে বাংলাদেশে যাচ্ছেন৷

আগামী ১৪ থেকে ১৯ডিসেম্বর এই ২৭জন প্রাক্তন ভারতীয় সেনা বাংলাদেশের বিজয় উৎসবে সামিল হবেন৷ পাশাপাশি আগামী ১৪ থেকে ১৮ডিসেম্বর কলকাতায় ৩০ জন বাংলাদেশি ‘মুক্তিযোদ্ধা’ কলকাতায় আসবেন৷ সোমবার ফোর্ট উইলিয়ামে বিজয় উৎসব উপলক্ষে একটি সূচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়৷ সেই অনুষ্ঠানেই মেজর জেনারেল আর. নাগরাজ দিনটির তাৎপর্য নিয়ে বক্তব্য রাখেন৷ এমনকি আগামী দিনগুলিতে কি কি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে সেই বিষয়েও বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি৷

পাকিস্তানের সেনারা৷ ফাইল ছবি৷

কলকাতায় সাড়ম্বরে পালিত হবে বিজয় দিবস৷ প্রিন্সেপ ঘাটে মিলিটারি ব্যান্ড কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছে৷ এছাড়াও থাকছে ঘোড়ার একটি বিশেষ অনুষ্ঠান এবং আরসিটিসিতে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে হেলিকপ্টার ফাইট ডিসপ্লে৷ এছাড়াও বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধের সময়কার বিভিন্ন ঘটনা তুলে ধরবেন এই বিশেষ অনুষ্ঠানে৷

১৯৭১ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের অন্যতম ফল পাক সেনার চরম পরাজয় ও বাংলাদেশ তৈরি৷ চার দশক আগে সেই ভয়াবহ সংঘর্ষে অন্তত ৩০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছিল৷ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের মাটিতে সেখানকার বাংলাভাষী জনগণ জলে-জঙ্গলে-ধান ক্ষেতের আড়ালে যে স্বাধীনতার লড়াই চালিয়েছিলেন সেটি দুনিয়ার গেরিলা সংঘর্ষের ইতিহাসে বিশেষ উল্লেখযোগ্য হয়ে থাকবে৷ এই যুদ্ধে পূর্ব পাকিস্তানের মাটিতে ১৬৬১ জন ভারতীয় জওয়ান প্রাণ দিয়েছিলেন৷

Advertisement
---
-----