মমতার স্বপ্নকে ভেঙে বিজেপিকেই সমর্থন টিআরএসের?

নয়াদিল্লি: সমীকরণটা স্পষ্ট করতে পারছে না টিআরএস৷ পালের হাওয়া কোন দিকে, সেদিকেই আপাতত নজর রেখে চলেছে তারা৷ কারণ একদিকে যেমন টিআরএস প্রধান কে চন্দ্রশেখর রাও নবান্নে এসে দেখা করছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে, তেমনই আবার নয়াদিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন পাশে থাকার৷

বিজেপি আর টিআরএস কাছাকাছি আসছে৷ নয়াদিল্লির রাজনৈতিক অলিন্দে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে এই কথা৷ তবে এবার হাতে গরমে প্রমাণও মিলল৷ শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি নেতা ও তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কালভাকুন্তলা চন্দ্রশেখর রাও বা কেসিআর৷ দুমাসের মধ্যে এই নিয়ে দ্বিতীয় বার মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ হল তাঁর৷

এই বৈঠকে রাও নিজের দলের অবস্থান জানান৷ তিনি বলেন ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর তাঁর দল অর্থাৎ টিআরএস এনডিএকে সমর্থন করবে৷ নির্বাচনে যদি বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পায়, তবে প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিধায়ক দিয়ে তাকে সরকার গড়তে সাহায্য করবে টিআরএস৷

- Advertisement -

তবে বেশ কয়েকটি শর্ত সামনে রেখেছে টিআরএস৷ তাদের দাবি ১১ দফা, যার মধ্যে রয়েছে এসসি এসটিদের জন্য বিশেষ সংরক্ষণ বিল নিয়ে আসা৷ তবে ভোটের আগে কোনও সন্ধি করতে রাজি হয়নি তারা৷ তাদের দাবি সেই রাস্তায় হাঁটলে কোনও লাভ তাদের হবে না৷

অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু এনডিএ-র সঙ্গ ত্যাগ করার পরে, টিআরএসের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে৷ এখানে লক্ষ্যণীয়, বিজেপির বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনার সময়, বিরোধীদের সঙ্গে ছিল না টিআরএস৷ তারা ভোট দান থেকে বিরত ছিল৷ জুন মাসেও কেসিআর প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে দেখা করেন৷ সেখানে রাজ্যের উন্নয়নের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী, অন্যদিকে টিআরএসের পক্ষ থেকেও সমর্থনের ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল৷

তবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়টি অস্বীকার করেছে টিআরএস৷ তাদের দাবি, রাজ্যের দাবিদাওয়া আদায়ের জন্যই এই বৈঠক ছিল। দাবিদাওয়া আদায় হলে তা রাজ্যের পক্ষে ভাল হবে। কিন্তু দিল্লির অন্দর মহলে খবর, শুধু দাবিদাওয়া নয়, নির্বাচনের পরে এনডিএ জোটকে সমর্থন নিয়েই দু’‌জনের মধ্যে কথা হয়েছে।

তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন টিআরএস এখন দু নৌকায় পা দিয়ে চলতে চাইছে৷ কারণ যদি জোট সরকার ক্ষমতায় আসে, তবে সেই দলে ভিড়ে যাবেন তারা, আর বিজেপি ক্ষমতায় আসলে মোদীর সঙ্গে বৈঠকের সূত্র ধরে সরকার গড়তে সাহায্য করবে টিআরএস৷ এদিকে শনিবার কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটিও একটি বৈঠকে বসে৷ সেখানে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেওয়া হয় শিব সেনার সঙ্গে নীতিগত বিরোধের কারণে কোনও জোটে যাবে না হাত শিবির৷

Advertisement ---
---
-----