মমতার যে পঞ্চবাণে কুপোকাত বিরোধী শিবির!

বিজেপিকে নিশানা করেই ২১-এর মঞ্চে অকপট নেত্রী মমতা৷ তার মাঝেই রাজ্যের জন্য নেওয়া কিছু কর্মসূচির ঘোষণা৷ সবমিলিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জমাটি ভাষণের মূল বিষয়- তৃণমূলের ভারত জয়৷ সেই কাহনের অন্যতম-

‘২১-এ দিচ্ছি ডাক ৪২-এ-৪২’

২০১৯ লোকসভায় তৃণমূলের জয় নিশ্চিত৷ লোকসভা ভোটে কোনও ভাবেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না বিজেপি বলে দাবি মমতার৷ পরবর্তী ২১ জুলাই ভারত জয় করবে তৃণমূল৷ মঞ্চ থেকে বার্তা মমতার৷ ২১-এর ব্রিগেড থেকেই ২০১৯ জয়ের সম্ভাবনাকে নিশ্চিত করেছেন মমতা৷ এমনকী, ১৯ জানুয়ারি বিজেপি বিরোধী সমাবেশের ডাক দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী৷ কথা দিয়েছেন, বিজেপি বিরোধী মঞ্চে বিভিন্ন দলের বরিষ্ঠ নেতাদের নিয়ে এসেই মোদীর বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়বেন৷ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই ২১-এর মঞ্চ থেকে সেই ডাক দিলেন মমতা৷

‘আগামী ১৫ আগস্ট দেশ বাঁচাও কর্মসূচী’

বিজেপির থেকে দেশ বাঁচাতে কর্মসূচির ডাক তৃণমূল নেত্রীর৷ ১৫ অগাস্টই হবে সেই কর্মসূচি৷ জানালেন তৃণমূল নেত্রী৷ ‘বিজেপি হটাও,দেশ বাচাও’ স্লোগানেই স্বাধীনতা দিবসে মিছিল হবে তৃণমূলের৷ কিন্ত তার আগে ২৮ জুলাই মেদিনীপুরে প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলেই হবে তৃণমূলের সমাবেশ৷

‘প্যান্ডেল সামলাতে পারে না দেশ সামলাবে’-

জোরদার কটাক্ষ৷ ২১-এর মঞ্চে প্রথম বক্তা ছিলেন অভিষেক মুখোপাধ্যায়৷ যিনি ঠিক এই লাইন দিয়েই নিজের ভাষণ শুরু করেন৷ একই কথা শোনা গেল তৃণমূল নেত্রীর মুখেও৷ ভাষণ চলার মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই মমতার কটাক্ষ, আগে প্যান্ডেল সামলাক পরে দেশ সামলাবে৷ দেশের ভারটা তৃণমূলই নিতে পারবে৷ মোদীকে ঠিক এই ভাষায় কটাক্ষ করেন মমতা৷ স্পষ্ট করেন, সভাস্থলে প্যান্ডেল ভাঙার ঘটনাকেই বার বার হাতিয়ার করবে তৃণমূল৷

‘বিজেপির হিন্দুত্ব মানি না’-

হিন্দুত্বের প্রশ্নে বড়সড় বার্তা মমতার-‘ আমি হিন্দু নই, স্বামী বিবেকানন্দও, রামকৃষ্ণও হিন্দু ছিলেন না’৷ ধার্মিক আস্ফালনকে কেন্দ্র করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিকে বিঁধলেন রাজনৈতিক চালেই৷ তিনি অস্বীকার করলেন বিজেপির হিন্দুত্বকে৷ প্রশ্ন ছুঁড়লেন বিজেপির হিন্দুত্ববাদীর উপর৷

‘দিল্লিতে কংগ্রেস তৃণমূলের সাহায্য চায়, রাজ্যে তৃণমূলকে বিপদে ফেলতে তৎপর হয়’

কংগ্রেসকে মমতার সাবধানবানী বলা যেতেই পারে৷ লোকসভাকে পাখির চোখ করে মমতার সমর্থন কোড়াতে তৎপর হয়েছে কংগ্রেস৷ মমতা ছাড়া ফেডারেল ফ্রন্ট বাস্তবায়ন যে কষ্টকর তা আগেই স্পষ্ট হয়েছে৷ এবার কংগ্রেসের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ আনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ জানালেন, দিল্লিতে বন্ধুত্ব, বাংলায় শত্রু হয়ে কোনও লাভ নেই৷ বাংলায় কংগ্রেস নিষ্প্রয়োজন৷ তৃণমূল একাই অনেক৷

২১ জুলাই মঞ্চ মানে মমতার উপস্থিতিতেই জন আস্ফালন৷ তাঁর জোরালো ভাষণ ২১-মঞ্চের মূল রসদ৷ এবারও সেই রসদে ভাঁটা পড়েনি৷ তবে, লোকসভা ভোটের আগে এটাই শেষ ব্রিডেগ মমতার৷ ২১-এর মঞ্চ আসবে ১৯-এর ভোটের পর৷ তাই বিজেপিকে একহাত নিয়েই মঞ্চ মাতালেন মমতা৷ অনাস্থা প্রস্তাব,বিজেপি,কংগ্রেস,বাংলা সব বিষয়কে ছুঁয়েই তৃণমূলের জয়কেই নিশ্চিত করলেন তৃণমূল নেত্রী৷

Advertisement
---
-----