প্রচারের অভিমুখ বাতলাতে ২৫শে তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠক

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: লড়াই এখন সেয়ানে সেয়ানে৷ কোন পথে হবে প্রচার? ভোটের আগে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠকেই বা কী বলবেন দলের নেতারা৷ তার অভিমুখ নির্ধারণে ফের কোর কমিটির বৈঠকের ডাক দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ চলতি মাসের ২৫ তারিখ নজরুল মঞ্চে হবে রাজ্যের শাসক দলের কোর কমিটির বৈঠক৷

আরও পড়ুন: রামপন্থী মুকুলের হয়ে লড়বেন বামপন্থী বিকাশ

জরুরী তলব৷ ইতিমধ্যেই সুপ্রিমোর বার্তা পৌঁছে গিয়েছে দলের প্রথম সারির নেতা-নেত্রীদের কাছে৷ জানা গিয়েছে কোর কমিটি বৈঠকে ডাক পেয়েছেন দলের সব সাংসদ, বিধায়ক ও জেলা সভাপতিরা৷ নির্বাচনে প্রর্থীরা মানুষের দরবারে যাবেন৷ কিন্তু শার্ষ নেতৃত্বের রণকৌশল বাস্তবায়ণের দায়িত্ব বর্তায় জেসা সভাপতি, বিধায়ক সহ অন্যন্য জনপ্রতিনিধিদের ঘাড়েই৷ তাই বৈঠকে দলনেত্রীর নির্দেশ শুনতে ডাকা হয়েছে সাংসদ, বিধায়ক ও জেলা সভাপতিদের৷

- Advertisement -

১৯শের ভোটে মোদী সরকারকে হঠাতে উদ্যোগী তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর নেতৃত্বেই কলকাতায় হয়েছে বিরোধী জোটের সমাবেশ৷ সেখান থেকেও বিরোধী নেতারা একযোগে আওয়াজ তুলেছেন মোদী হঠাও-দেশ বাঁচাও৷ মোদী সরকারের লাগু করা জিএসটি, নোটবন্দি যে এবারের ভোটে অন্যতন ইস্যু তা পরিষ্কার৷

আরও পড়ুন: মার্চের প্রথম সপ্তাহেই পদত্যাগ করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী

কিন্তু পরিস্থিতির নিরীখে এতেই বাজিমাত সম্ভব নয়৷ ইতিমধ্যেই ইভিএমের বদলে ফের ব্যালটে ভোট করানোর দাবি জানানো হয়েছে তৃণমূল সহ অন্য বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির পক্ষ থেকে৷ ভোটের আগে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে এই নিয়ে বৈঠকও রয়েছে৷ সেই বৈঠকে কী বলা হবে৷ তা কোর কমিটির বৈঠক থেকেই স্থির করতে চাইচেন মমতা৷

 

গত ১৬-ই নভেম্বর নেতাজী ইন্ডোরে কোর কমিটির বৈঠক ছিল জোড়-ফুল শিবিরের৷ উপস্থিত ছিলেন দল নেত্রী৷ সেই বৈঠক থেকে ভোটের লড়াইয়ে ঘোষণা করেছিলেন মমতা৷ তাহলে হঠাৎ তিন মাসের মধ্যেই কেন ফের বৈঠকের ডাক৷ দলেরই এর নেতার কথায়, ভোট যত এগিয়ে আসছে পরিস্থিতি ততই বদলে যাচ্ছে৷ সম্পরতি রাজীব কুমারকাণ্ডে কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্ক চরমে পৌঁছেছে৷ মোদী সরকারের বিরুদ্ধে অল আউট লড়াইয়ের পথে বাংলার মমতা৷ এছাড়া জোট ক্রমশ পোক্ত হচ্ছে৷ এক যোগে লড়াইয়ের ক্ষেত্রে নেত্রী কী বলবেন তাও দলের অপেক্ষাকৃত নীচু তলার নেতাদের শোনা প্রয়োজন৷ ফলে অল্প সময়ের মধ্যেই ফের ডাক দেওয়া হল কোর কমিটির বৈঠকের৷

তৃণমূলের এক বিধায়কের কথায়, রাজ্যে এবার ভোটে হবে মেরুকৃত৷ একদিকে জোড়ফুল৷ অন্যদিকে তৃণমূল৷ কিন্তু বাম কংগ্রেস আসন সমঝোতা করলে রণকৌশল হবে ভিন্ন৷ কী হতে পারে সেই কৌশল? সেই বার্তা পেতেই আসন্ন কোর কমিটির বৈঠক গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে৷

দলেরই একাংশ মনে করছে বর্তমান সাংসদদের মধ্যে অনেককেই এবার টিকিট নাও দিতে পারেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদেরই প্রার্থী করায় গুরুত্ব দেওয়া হতে পারে বলে রটনা৷ বাস্তবে কী হবে? বৈঠক থেকে সেই আভাস পাওয়ার-ও সম্ভাবনা রয়েছে বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের৷

আরও পড়ুন: লোকসভা ভোটের মুখে রাজ্যে ফের আইপিএস অফিসারদের বদলি

আর কয়েক দিনের অপেক্ষা৷ তারপরই লোকসভা ভোটের ঘোষণা করতে পারে নির্বাচন কমিশন৷ তার আগে কোমড় বেঁধে ঘর গোছাতে শুরু করেছে সব রাজনৈতিক দল-ই৷ তারই রেশ আসন্ন তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠক৷