‘আড়াই হাত মানুষ’-এর ২৫ বছর উদযাপন

কলকাতা: রবিবার ২৫ মার্চ বাংলা কবিতার জন্য একটি স্মরণীয় দিন। সুবোধ সরকারের ‘আড়াই হাত মানুষ’ কাব্যগ্রন্থটি ২৫ বছর পূর্ণ করল এদিন। এই উপলক্ষে টালিগঞ্জের কাছে ১২ ডি রাধাগোবিন্দনাথ সরণির একটি ক্যাফে কফি ডে-তে ‘আড়াই হাত মানুষ’-এর ২৫ বছর পূর্তি উদযাপন করা হল। গানে-কবিতা-আড্ডায় মুখোরচক এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল রূপালী প্রকাশন সংস্থা। দুপুর তিনটে নাগাদ একঝাঁক কবি জমায়েত হয়েছিলেন অনুষ্ঠানে। উপস্থিত ছিলেন ‘আড়াই হাত মানুষ’-এর কবি সুবোধ সরকার নিজেও। শুরুতেই অংশুমান করের কথায় উঠে আসে দু’দক পরেও ‘আড়াই হাত মানুষ’ বইটি কীভাবে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছে সেই প্রসঙ্গ। এরপর কব্যগ্রন্থটি বিষয়ে নানা কথা বলেন অর্ণব সাহা।

‘আড়াই হাত মানুষ’ কাব্যগ্রন্থের প্রায় প্রতিটি কবিতায় কবি ব্যক্তি ও সমাজের ভানগুলিকে তীব্র আক্রমণ করেন। চেতন ও অবচেতন মনের দ্বিচারিতাকে একটি একটি করে চিহ্নিত করে দেন। ছন্দের ভুবন তছনছ করে নিয়ত নির্মাণ চলে শাণিত গদ্যের। কবিতা পাঠের মধ্যদিয়ে এক ধরনের ধ্যানের জন্ম হয়। সেই ধ্যান আমাদের প্রশান্তি দেয় না। বরং বিচলিত করে তোলে। আড়াই হাত বামন মানুষের উর্ধ্বে ঘষিত হয় পূর্ণ মানবের আহ্বান। এই বইয়ে সুবোধ সরকার উচ্চারণ করেছেন– “এই আমার হাত, দেখো হাতে কিছু নেই/ আমি তোমার দিকেই এগিয়ে দিলাম একে”। বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলেন ২৫ বছর পরেও ‘আড়াই হাত মানুষ’ কীভাবে এত পাঠক ধরে রেখেছে।

রবিবারের এই আড্ডা নানা দিক থেকে বাঙময় হয়ে উঠেছিল। কফি খাওয়ার ফাঁকে ফাঁকে এইভাবে আড্ডার মধ্যে দিয়েও যে একটা অনুষ্ঠান হতে পারে সেটাই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল রূপালী প্রকাশনা। এই অনুষ্ঠানে দর্শক আর অংশগ্রহণকারীর মধ্যে কোনও বিভাজন রেখা ছিল না। সুদূর আমেরিকার ডালাস থেকে ফোন করে কবিকে শুভেচ্ছা জানান কবি গৌতম দত্ত। কবিতা পড়েন সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুজিত দাস, অরুণাভ রাহারায়, স্পন্দন চট্টোপাধ্যায়-সহ আরও অনেকেই। আড্ডার পাশাপাশি শিল্পী পার্থ রায় রং-তুলির টানে সাজিয়ে তোলেন ক্যানভাস। গান করেন দেবতৃষা সেনগুপ্ত। সমগ্র অনুষ্ঠানটি যুগ্ম সঞ্চালনা করেন অময় দেব রায় এবং প্রীতি কর্মকার।

Advertisement ---
-----