মুম্বই: প্রখর গরমের মাঝে একটু আরাম পেতে গ্রামের কুয়োতে নেমেছিল তিন বালক। সেই অপরাধে তাদের প্রবল মারধর করল দুই গ্রামবাসী। একই সঙ্গে নগ্ন করে ঘোরান হল সমগ্র গ্রামে। তিন বালকের অপরাধ তারা দলিত।

আরও পড়ুন- চেয়ারে বসায় মোদীর রাজ্যে দলিত মহিলাকে পিটিয়ে মারা হল

Advertisement

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমের রাজ্য মহারাষ্ট্রের জলগাঁও এলাকায়। ওই অত্যাচারের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই উঠেছে সমালোচনার ঝড়। স্বভাবতই অস্বস্তিতে পড়েছে মহারাষ্ট্রের বিজেপি-শিবসেনার গেরুয়া জোট সরকার।

আরও পড়ুন- দলিত ভক্তকে কাঁধে চাপিয়ে মন্দিরে নিয়ে গেলেন পুরোহিত

চলতি মাসের দশ তারিখে ঘটে ওই ঘটনা। গরমের মাঝে একটু স্বস্তি পেতে বাকাড়ি গ্রামের কুয়োতে নেমেছিল তিন বালক। তাদের সকলেরই বয়স ১২ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। দলিত বালকদের কুয়োতে নামা মেনে নিতে পারেনি গ্রামের উচ্চ বর্ণের লোকেরা। কুয়ো থেকে তুলে শুরু হয় অত্যাচার। মারতে মারতে নগ্ন করে ঘোরান হয় সমগ্র গ্রাম।

সেই অত্যাচারের ভিডিও রেকর্ড করেও রাখা হয়। ওই ভিডিও-টিতে দেখা গিয়েছে নির্যাতিত বালকদের পরনে শুধু হাওয়াই চটি এবং কচু পাতা দিয়ে ঢাকা রয়েছে লজ্জাস্থান। তাদের উপরে নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে কয়েকজন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই ভিডিও ভাইরাল হতে দিন তিনেক সময় নেয়। এরপরেই ওই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় বিস্তীর্ণ এলাকায়।

নির্যাতনের শিকার হওয়া তিন নাবালকের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ জানানো হয় পুলিশের কাছে। তারপরে আসরে নামে প্রশাসন। ওই রাজ্যের সামাজিক আইনমন্ত্রী দিলীপ কুম্বলে বলেছেন, “সমগ্র ঘটনার তদন্ত চলছে। ওই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।” এই নৃশংস কাজের সংগে যারা জড়িত তাদের সকলকে কড়া শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওই রাজ্যেরই আরেক মন্ত্রী রামদাস আটাওয়ালে।

আরও পড়ুন- মন্দিরে বসার অপরাধ, পিটিয়ে খুন দলিত যুবককে

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সুরব হয়েছে মহারাষ্ট্রের শাসক বিরোধী সকল রাজনৈতিক দল। সকলেই একযোগে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন।

সার্বিক উন্নয়ন এবং বিকাশের প্রতিশ্রুতি শোনা যায় বিজেপি নেতাদের মুখে। পদ্ম শিবিরের দেবেন্দ্র ফড়নবিশ ওই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এই মুহূর্তে বিদেশি বিনিয়োগ টানতে তিনি দুবাই, কানাডা এবং আমেরিকা সফরে রয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর বিকাশের পথে এই ঘটনা যে বড় অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে তা বলাই বাহুল্য।

----
--