সময় প্রতিযোগিতার বাজারে এনেছে হাজারো পরিবর্তন৷ অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করছে আপনার উপর? বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই গবেষণা শুরু হয়ে গিয়েছে৷ ফল হিসেবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, বিগত কয়েক দশক ধরে মানুষের কাজের প্রতি ইচ্ছাশক্তি হ্রাস পেয়েছে৷

কাজের সময়ে আমরা কী কাজ করছি সে বিষয়টি খেয়াল থাকছে না৷ যা অবশ্যই একটি সমস্যা৷ বর্তমান এবং ভবিষ্যতের ভাবনা আমাদের উপর মানসিক চাপ সৃষ্টি করতে থাকে প্রতিনিয়ত৷ তবে, চিন্তার কোন কারণ নেই৷ কাজের জায়গায় আপনাকে স্ট্রেস ফ্রী রাখতে রইলো কয়েকটি টিপস৷

১) মানসিক সক্রিয়তা এক্ষেত্রে উপহারের সমান৷ কাজের ক্ষেত্রে পূর্ণ মনোযোগ আপনার পারফর্মেন্সকে পরিণত করতে সাহায্য করবে৷ যা অবশ্যই একটি ইতিবাচক দিক৷ তাই, কর্মক্ষেত্রে মনোযোগই হল সেই চাবি যা দিয়ে আপনি সহজেই খুলতে পারেন সফলতার দরজা৷

২) কাজের ক্ষেত্রে লক্ষবিন্দুকে স্থির রাখুন৷ ‘মান্টিটাস্কিং’ আমাদের লক্ষবিন্দুকে নষ্ট করে দেয়৷ এছাড়া, ‘মান্টিটাস্কিং’ আমাদের মধ্যের সৃজনশীল দিকটিতেও মরচে ফেলে৷ সেটিও অবশ্য স্ট্রেসের অন্যতম একটি কারণ৷ একই সময়ে অনেক কাজ না করে একটি কাজ মনোযোগ সহকারে করার চেষ্টা করুন৷ এতে উপকার আপনারই৷

৩) অনেক সময় মানসিক ব্যস্ততা হতে পারে স্ট্রেসের কারণ৷ মানসিক ব্যস্ততা আবার দুধরণের হয়ে থাকে৷ যেমন অতিরিক্ত ই-মেল, মিটিং ইত্যাদি হতে পারে বাহ্যিক ব্যস্ততার কারণ৷ আবার, এই কারণগুলির জন্যই আপনার মনের মধ্যেও চাপ সৃষ্টি হতে পারে৷

কাজের ক্ষেত্রে সক্রিয়তা রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রেখে স্ট্রেসকে কম করতে সাহায্য করে৷ কাজের ক্ষেত্রে এটি লক্ষস্থির করতে সাহায্য করবে এবং পারফর্মেন্সকে পরিণত করবে৷ অন্যান্য বিভিন্ন ট্রেনিংয়ের মতো এই বিষয়টিকেও গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে৷

----
--