জঙ্গি হামলা ও পাথর ছোঁড়ায় এই বছরেই শহিদের সংখ্যা ৪১

নয়াদিল্লি : ২০১৮ সালের খতিয়ান পেশ করল ভারতীয় সেনা৷ জুলাই মাস পর্যন্ত মোট ৪১ জন জওয়ান শহিদ হয়েছেন৷ কাশ্মীর উপত্যকায় জঙ্গি হামলা ও পাথর ছোঁড়ার মত ঘটনায় এরা শহিদ হয়েছেন বলে জানাচ্ছে সেনা৷

এছাড়াও আহত হয়েছেন ৯০৭ জন জওয়ান৷ সোমবার এই তথ্য তুলে ধরে ভারতীয় সেনা জানায়, প্রথম ছমাসে ৩৯ জন নিরাপত্তা কর্মীর মৃত্যু হয়েছে৷ এর মধ্যে রয়েছেন ১৭ জন জওয়ান, ২০ জন পুলিশ কর্মী, ২ জন সিআরপিএফ জওয়ান৷ ৯৬ জন জওয়ান আহত হন প্রথম ছমাসে৷ আহতদের মধ্যে ২৮ জন সেনা কর্মী, ৩১ জন সিআরপিএফ, ও ৩৭ জন পুলিশ কর্মী রয়েছেন৷

ওই একই সময়ে পাথর ছোঁড়া বা হামলার ঘটনায় দু জন সিআরপিএফ জওয়ান মারা যান৷ আহত হন ৮১১ জন জওয়ান৷ যার মধ্যে ৫৯২ জন পুলিশ কর্মী ও ২১৯ জন সিআরপিএফ জওয়ান৷ এই বছর মোট ৭৩৪টি পাথর ছুঁড়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে সেনা৷

- Advertisement -

জওয়ান ও নিরাপত্তা কর্মীরদের হতাহতের সংখ্যা প্রকাশ ছাড়াও সাধারণ মানুষের ক্ষয়ক্ষতির কথাও সেনা তুলে ধরেছে৷ তারা জানিয়েছে ৩২ জন নাগরিক মারা গিয়েছেন চলতি বছরে, আহত হয়েছেন ১১৭ জন৷ ২৫ জন সাধারণ মানুষ মারা গিয়েছেন ও ৫৪ জন আহত হয়েছেন জঙ্গি হামলার ঘটনায়৷ সেখানে সাত জন নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে ও ৬৩ জন আহত হয়েছেন অন্যান্য ঘটনায়৷

এর আগে, জানুয়ারি মাসে সেনা জানায়, ভারতীয় সেনা প্রতি তিন দিনে একজন করে জওয়ানকে হারায়। গত তেরো বছর ধরে এই গড়ই বজায় রয়েছে। ২০০৫ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত যে খতিয়ান ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে প্রতি তিনদিন গড়ে একজন করে ভারতীয় জওয়ান শহিদ হয়েছেন।

বিগত বছর গুলিতে মোট ১৬৮৪ জন জওয়ান তাদের প্রাণ হারিয়েছেন। পাকিস্তানের সাথে গুলিবিনিময়, জঙ্গি দমন অভিযান, সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানগুলিতে শহিদ হয়েছেন এইসব বীর জওয়ানরা।

জানুয়ারির ১৫ তারিখ এই রিপোর্ট প্রকাশ করে ভারতীয় সেনা। ২০১৬ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ৮৬, ২০১৫ সালে ছিল ৮৫। দেখা গিয়েছে যত বছর পিছিয়ে যাওয়া হচ্ছে, তত মৃত্যুর সংখ্যা কমছে ভারতীয় জওয়ানদের।

Advertisement ---
---
-----