ভারতীয় সেনার হাত ধরে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার পথে ৩২ কাশ্মীরি পড়ুয়া

নয়াদিল্লি: ভারতীয় সেনার প্রজেক্টের আত ধরেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে ৩২ জন কাশ্মীরির। এবছর জয়েন্ত এন্ট্রান্সে উত্তীর্ণ হয়েছে এরা। মঙ্গলবার এক বিবৃতি দিবে এই খবর জানিয়েছে ভারতীয় সেনা।

কাশ্মীরের ছাত্রদের নিয়ে ভারতীয় সেনা এক বিশেষ উদ্যোগ শুরু করেছিল, যার নাম দেওয়া হয় ‘Project Kashmir Super 50’. সেনাবাহিনী ও Centre for Social Responsibility and Leadership and Petronet LNG Ltd যৌথভাবে এই উদ্যোগ নিয়েছিল। আর সেই প্রজেক্টেই এবার দুই ছাত্রী সহ ৩২ জন পড়ুয়া জয়েন্ট উত্তীর্ণ হয়েছে। এদের মধ্যে সাতজন জয়েন্ট এন্ট্রান্স অ্যাডভান্সও উত্তীর্ণ হয়েছে। তাঁরা দেশের যে কোনও আইআইটি-তে ভর্তি হতে পারবেন।

মঙ্গলবার সাফল পড়ুয়ারা সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে দেখা করেন। সেনাপ্রধান তাঁদের এগিয়ে যাওয়ার জন্য উৎসাহ দেন ও দেশের উন্নতির অংস হতে বলেন। ২০১৩-তে শুরু হয়েছিল এই প্রোগ্রাম। এই নিয়ে পঞ্চমবার এই প্রজেক্টে সফল হল সেনা। যারা দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় ৭০ শতাংশের বেশি নম্বর পায় ও দরিদ্র পরিবার থেকে আসে, সেইসব পড়ুয়াদেরই বেছে নেওয়া হয় এই প্রজেক্টের জন্য। এরপর ৫০জনকে পরীক্ষার মাধ্যমে বেছে নিয়ে ১১ মাসের বিশেষ ট্রেনিং দেওয়া হয় তাদের। বিনামূল্যে হস্টেলে রেখে তাদের কোচিং-এর ব্যবস্থা করা হয়।

- Advertisement -

কাশ্মীরের বহু পড়ুয়া সুযোগের অভাবে এগোতে পারে না। পরিবারের সমর্থন না পেয়ে মাটিতে মিশে যায় সব স্বপ্ন। তাই তাদের জন্য সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কার্গিলের চিকতান গ্রামের বাসিন্দা ফরিদা খাতুন রয়েছে এই সফল ৩২ জনের মধ্যে। ফরিদা বলে, ‘কাশ্মীরের অনেক জায়গায় স্কুলই নেই, থাকলেও সেগুলো বছরের বেশির ভাগ সময় বন্ধ থাকে। শ্রীনগরে এসে আমি এই প্রোগ্রামের কথা জানতে পারি। বাড়িতে না জানিয়েই ওরীক্ষা দিয়েছিলাম, যদি কেউ বারণ করে।” আগামিদিনে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হতে চায় ফরিদা।

ইঞ্জিনিয়ারিং-এর পর এবার মেডিক্যালের জন্য এরকম একটি প্রোগ্রামের কথা ভাবছে সেনাবাহিনী। বিনামূল্যে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করে মেডিক্যালের এন্ট্রান্সের পাঠ দেওয়া হবে ছাত্রছাত্রীদের। এই প্রজেক্টের জন্য হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম, National Integrity Educational Development Organisation (NIEDO) -এর সঙ্গে কথা বলছে ভারতীয় সেনা।

Advertisement
---