লখনউ: দেশ জুড়ে বেকারত্বে চেহারাটা ঠিক কেমন, তা বিভিন্ন নিয়োগের পরীক্ষার সময়ই উঠে আসে। অপেক্ষাকৃত কম যোগ্যতার চাকরির জন্য অনেক সময়ই অনেক উচ্চশিক্ষিতদের আবেদন করতে দেখা যায়। যা থেকে বোঝা যায়, আসলে বেকারের হার বাড়ছে হু হু করে। আবার সেরকমই একটা ছবি উঠে এল উত্তরপ্রদেশ।

সেরাজ্যের পুলিশের টেলিকম বিভাগে বার্তাবাহকের চাকরির জন্য আবেদনের নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। ৬২টি শূন্যপদের জন্য আবেদনকারীর সংখ্যা প্রায় লাখ ছুঁয়েছে। তবে নিয়োগকারীদের চোখ কপালে উঠছে এটা দেখে যে, পিএইচডি করেছেন এমন কয়েক হাজার প্রার্থীও রয়েছে আবেদনকারীদের তালিকায়।

Advertisement

এই চাকরির আবেদনের যোগ্যতা ছিল পঞ্চম শ্রেণী উত্তীর্ণ। আবেদন জমা পড়তে দেখা গেল, আবেদনকারীদের ৫০,০০০ স্নাতক, ২৮০০০ মাস্টার ডিগ্রি করা ও ৩৭০০ প্রার্থী পিএইচডি করেছে। জমা পড়া ৯৩,০০০ আবেদনের মধ্যে মাত্র ৪৭০০ আবেদনকারীর যোগ্যতা পঞ্চম শ্রেনী থেকে দ্বাদশ শ্রেনী পাশ।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, প্রায় ১২ বছর ধরে ৬২টি পিয়ন-মেসেঞ্জারের পোস্টে কোনও নিয়োগ হয়নি। এই চাকরিতে কাজ হল অনেকটা পোস্টম্যানের মত। পুলিশ ডিপার্টমেন্টের এক অফিস থেকে আর এক অফিসে খবর পৌঁছে দেওয়াই এদের কাজ। এই কাজের জন্য সাইকেল চালাতে জানাটা জরুরি। এর আগে পরীক্ষা নেওয়ার কোনও পরিকল্পনা ছিল না, কিন্তু এত আবেদন দেখে পরীক্ষা নেওয়ার কথা ভাবছে সংশ্লিষ্ট দফতর। এই চাকরির বেতন হবে শুরুতেই ২০,০০০।

পুলিশের টেলিকম বিভাগের এডিজি পিকে তিওয়ারি জানান, এটা খুব ভাল বিষয় যে শিক্ষিত প্রার্থীরা এই পেশায় কাজ করবেন।

----
--