হায়দরাবাদ: তেলঙ্গনার বাস দুর্ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এদের মধ্যে বেশিরভাগই মহিলা ও শিশু৷ মঙ্গলবার ভোরে, তেলেঙ্গানার কোনদাগাট্টুতে মর্মান্তিক বাস দুর্ঘটনা হয়৷ ৩০ ফুট গভীর খাদে বাসটি পড়ে যায় বলে খবর৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ, প্রশাসন সহ উদ্ধারকারী দল৷ প্রথমে ৪০ জনের মৃত্যুর খবর আসে, পরে মৃতের সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকে৷ ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ১২ যাত্রীর৷ গুরুতর আহতদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে অনেকের মৃত্যু হয়৷ মৃত ৫১ জনের মধ্যে ৭ জন শিশু৷ বাসে মোট ৬০ জন যাত্রী ছিলেন৷

প্রশাসন সূত্রে খবর, পাহাড়ি রাস্তায় রেষরেষির জেরেও খাদে পড়ে যেতে পারে বাস৷ সেই সন্দেহ কিছুটা হোলেও ঘনীভূত হচ্ছে৷ কোনদাগাট্টু পাহাড়ে ভগবান হনুমানের মন্দিরে পুজো দিয়ে তীর্থযাত্রীদের নিয়ে ফিরছিল বাসটি৷ তখনই দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গভীর খাদে পড়ে যায় যাত্রীবাহি বাস৷ চার বার পাল্টি খেয়ে বাসটি খাদে পড়ে৷ সেইসময়, বাস থেকে সোজা খাদে পড়ে যান বহু যাত্রী৷

Advertisement

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানাচ্ছেন, ঘটনার সময় মারাত্মক শব্দ শোনা যায়৷ স্থানীয়দের তৎপরতায় প্রথমে শুরু হয় উদ্ধারকাজ৷ অনেকেই নিজেদের গাড়ি থামিয়ে উদ্ধারকাজে হাত লাগায়৷ আহতদের পার্শ্ববর্তী জাগিশিয়াল সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷পাহাড়ি রাস্তায় রেষারেষি কতটা সম্ভব তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ তবে, প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন, দুর্ঘটনাগ্রস্ত বাস একটি বাসের পিছনে ছিল৷ আর সেই কারণেই রেষারেষির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে৷ দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও৷ ইতিমধ্যেই, দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের ঘোষণা করেছেন তিনি৷

----
--