আদালতের কর্মী নিয়োগ পরীক্ষায় কারচুপির অভিযোগে ধৃত ৭

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে আদালতের কর্মী নিয়োগ পরীক্ষায় কারচুপির অভিযোগে এক যুবতী সহ সাত জন চাকরি প্রার্থীকে গ্রেফতার করল বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ। পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতরে মোবাইলে গুগল ও হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে প্রশ্নের উত্তর জানার চেষ্টার অভিযোগে রবিবার এই সাত জনকে পুলিশ প্রথমে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। পরে ওই দিন রাতেই তাদের গ্রেফতার করে।

সূত্রের খবর, গত রবিবার জেলা আদালতে কর্মী নিয়োগের পরীক্ষা ছিল। বাঁকুড়া সদর, বিষ্ণুপুর ও খাতড়া মহকুমা এলাকার ৩৩ টি কেন্দ্রে প্রায় সাড়ে ২২ হাজার কর্মী প্রার্থী পরীক্ষায় বসেছিলেন। বাঁকুড়া জেলা ছাড়াও এই দিনের পরীক্ষায় রাজ্যের বিভিন্ন অংশের চাকরি প্রার্থীরা ওই সব পরীক্ষাকেন্দ্রে উপস্থিত হয়েছিলেন।

- Advertisement -

পরীক্ষা আয়োজকদের তরফে দাবি করা হয়েছে, বাঁকুড়া সদর থানা এলাকার খ্রিষ্টান কলেজ, বঙ্গ বিদ্যালয় ও রাজগ্রাম হিন্দু বিদ্যালয় থেকে দু’জন করে মোট ছ’জন৷ এবং বাঁকুড়া শহরের শিব শঙ্কর বালিকা বিদ্যালয় থেকে একজনকে পরীক্ষায় কারচুপি করার অভিযোগে হাতে নাতে ধরা হয়। তারা প্রত্যেকেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উত্তর জানার চেষ্টা করছিলেন। উত্তরপত্র বাতিল, মোবাইল বাজেয়াপ্ত করে ওই সাত জনকে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পরীক্ষাকেন্দ্রগুলির তরফে অভিযুক্তদের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ধৃত ওই সাত পরীক্ষার্থীরা মালদহ, নদিয়া ও দক্ষিণ ২৪ পরগণার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। যদিও ওই সাত পরীক্ষার্থীর নাম জানানো হয়নি। ধৃতদের মধ্যে এক জনের আত্মীয় বলে দাবি করা মালদহের বাসিন্দা সমর বিশ্বাস সাংবাদিকদের বলেন, কি হয়েছে কিছুই জানি না। বর্ধমান বেড়াতে এসেছিলাম। আমার এক আত্মীয় এখানে আটকে রয়েছে এই খবর শুনেই এদিন সকালেই বাঁকুড়ায় তিনি এসেছেন বলে জানান। এর বাইরে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

পরীক্ষার শুরুর আগেই পরীক্ষাকেন্দ্রের ভিতরে প্রত্যেক কর্মী প্রার্থীকে মোবাইল ফোন সহ অন্যান্য সমস্ত ধরণের ইলেকট্রনিক্স দ্রব্য ব্যবহার না করতে কর্তৃপক্ষের তরফে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল। তারপরেও ওই সাত জন মোবাইল নিয়ে পরীক্ষা দিচ্ছিলেন বলে অভিযোগ। ধৃতদের বিরুদ্ধে মোবাইল নিয়ে পরীক্ষা দেওয়ার নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে। ধৃতদের সোমবার বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশের পক্ষ জেলা আদালতে তোলা হয়েছে।