খণ্ডঘোষ: ঘুমন্ত অবস্থায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হল চার বছরের এক শিশুর৷ সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটে পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ এলাকায়৷ এই ঘটনায় আরও একজন গুরুতর জখম হয়েছে৷ আপাতত সে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

এই ঘটনার জেরে শোকস্তব্ধ খণ্ডঘোষের সগড়াই অঞ্চলের কামদেবপুর এলাকা৷ ছোট ছেলের মৃত্যু ও বড় ছেলের আহত হওয়ার জেরে বাকরুদ্ধ তাদের মা৷ আগুন লাগার সময় ঘরের মধ্যেই ছিলেন ওই মহিলা৷ তিনি বাঁচলেও ছোট ছেলেকে বাঁচাতে পারেননি৷ রক্ষা করতে পারেননি বড় ছেলেকেও৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কামদেবপুরের বাসিন্দা এক মুরগি ব্যবসায়ী সোমবার রাতে দেরিতে বাড়ি ফেরেন৷ এর জন্য দুই ছেলে মইদুল ও মফিজুলকে নিয়ে তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়েন ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী৷ রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ তাঁদের বাড়িতে আগুন লাগে৷ বাইরে থেকে আগুন দেখে হইচই শুরু করেন প্রতিবেশীরা৷ তখন ঘুম ভাঙে ওই মহিলার৷ দেখেন ঘরবাড়ি জ্বলছে দাউদাউ করে৷ ঘটনার আকস্মিকতায় তিনি দৌড়ে ঘর থেকে বের হয়ে আসেন৷ তার পর বুঝতে পারেন ছেলেরা ঘরে রয়েছে৷

তখন প্রতিবেশীরাই উদ্ধার কাজ শুরু করে৷ গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বছর ১৫-র মফিজুলকে৷ যদিও ততক্ষণে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে চার বছরের মইদুলের৷ সঙ্গে সঙ্গে দুই ভাইকে নিয়ে যাওয়া বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷ সেখানেই মইদুলকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়৷ দাদা মফিজুলকে ওই হাসপাতালেই ভর্তি করা হয়েছে৷ আপাতত সেখানে সে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন৷

কীভাবে আগুন লাগলেও তা এখনও জানা যায়নি৷ তবে শর্টসার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান৷ ঘটনায় পুলিশে এখনও অভিযোগ দায়ের হয়নি৷

----
--