‘একটি মেয়ে দশটি ছেলের সমান’

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: পরিবারে মেয়ে জন্ম মানেই এখন আর টেনশন না৷ একটি মেয়ে দশটি ছেলের সমান৷ শুক্রবার বাঁকুড়ার ইন্দাসে ব্লক প্রশাসনের উদ্যোগে কন্যাশ্রী প্রকল্পের সাফল্য উদযাপন অনুষ্ঠানে কথাগুলি বলেন বিডিও সুচেতনা দাস৷ তিনি জানান সরকারি নির্দেশে এবার থেকে ‘কন্যাশ্রী’ পরিবারের সদস্যদের আর্থসামাজিক উন্নতিতে ১০০দিনের কাজ প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

সারা রাজ্যের সঙ্গে বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন ও জেলার ২৩টি ব্লক প্রশাসনের উদ্যোগে মহাসমারোহে কন্যাশ্রী প্রকল্পের সাফল্য উদযাপন অনুষ্ঠান হল৷ জেলার মূল অনুষ্ঠানটি এদিন হল বাঁকুড়া শহরের রবীন্দ্র ভবনে৷ প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা৷ উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু, সভাধিপতি অরূপ চক্রবর্তী, বাঁকুড়া সদর মহকুমা শাসক অসীম কুমার বালা প্রমুখ৷

মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা তাঁর ভাষণে বলেন, ‘‘কন্যাশ্রী এখন বিশ্বশ্রী৷ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প এই কন্যাশ্রী৷ মেয়েদের সামাজিক উন্নতিতে এই প্রকল্প দারুণ কাজে লেগেছে৷ নাবালিকা বিয়ে বন্ধে এই প্রকল্প আজ নজির সৃষ্টি করেছে৷’’ সম্প্রতি বিশ্বের ৬২টি দেশের ৫৫২টি জনসেবা মূলক প্রকল্পের মধ্যে রাষ্ট্রপুঞ্জে বাংলার কন্যাশ্রী শ্রেষ্ঠ পুরস্কার পেয়েছে সে কথাও উল্লেখ করেন তিনি৷

- Advertisement -

জেলার বিভিন্ন প্রান্তে কন্যাশ্রী প্রকল্পের সাফল্য উদযাপনের অনুষ্ঠানগুলিতে এদিন ‘কন্যাশ্রী’দের নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি তাদের কাজের জন্য নানান পুরস্কার দেওয়া হয়৷

Advertisement
---