স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: আগ্নেয়াস্ত্র সহ ১২ জন দুস্কৃতীকে গ্রেফতার করল পুলিশ। বুধবার রাতেই কোচবিহারের সিতাই থেকে উদ্ধার করা হয় এই আগ্নেয়াস্ত্র৷ এর পাশাপাশি নিউ বাজার এলাকা থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। শহর থেকে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হওয়াকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, পুলিশ সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে জানিয়েছেন, ওই স্থানে তল্লাশি চালিয়ে চারটি ওয়ান সাটার, পাঁচটি গুলি, ২৫ টি তির, বেশ কিছু ধারাল অস্ত্র, ২৫ টি তাজা বোমা সহ প্রচুর পরিমাণে পাথর উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার কোচবিহার পুলিশ সুপারের দফতরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা জানান জেলার পুলিশ সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে।

উল্লেখ্য, বুধবার তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সিতাই এলাকা। যুব তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ ছিল নিউ বাজার এলাকায় ২১ শে জুলাই উপলক্ষ্যে তাঁদের শিবির চলাকালীন হামলা চালায় তৃণমূল কংগ্রেস ও পুলিশ। তাঁদের লক্ষ্য করে বোমা ও গুলি ছোঁড়া হয়৷ তাঁদের কর্মীদের উপর লাঠি চার্জও করা হয়। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব৷ তাঁদের দাবি, এলাকায় দুষ্কৃতীরা জড়ো হয়ে অশান্তি পাকানোর চেষ্টা করেছিল৷ সেখানে পুলিশ হানা দিলে তাদের উপর হামলা চালায় তাঁরা।

এদিন তৃণমূল কংগ্রেস নেতাদের দাবির সমর্থন পাওয়া গেল পুলিশের বক্তব্যে। পুলিশ সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে বলেন, ‘‘দুষ্কৃতীরা পুলিশের উপর হামলা চালায়৷ এর ফলে এক পুলিশ কর্মী গুলি বিদ্ধ হয়।’’ ঘটনায় মূল অভিযুক্ত ধরনীকান্ত সরকার পলাতক বলেও জানান তিনি। যার বাড়িতে এই শিবির চলছিল সেই নুর মহম্মদ প্রামানিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যদিও এদিন গ্রেফতার হওয়া এক যুবক নিজেকে যুব তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী বলে দাবি করেছেন৷ তাঁর অভিযোগ, রাজনৈতিক চক্রান্তের শিকার হয়েছেন তাঁরা।

----
--