বোনকে পরোটা কিনতে পাঠিয়ে আত্মঘাতী দিদি

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: বোনকে পরোটা কিনতে পাঠিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়ল দিদি। পরোটা কিনে দিদির ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার শুরু করে বোন৷ সেই চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন।

পরে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে দিয়েছে। দক্ষিণ দিনাজপুরের বংশীহারি থানা এলাকার এই ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও আত্মহত্যার কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ ও মৃতার পরিবারের লোকেরা।

আরও পড়ুন: ভরতি প্রক্রিয়া নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত যাদবপুরে

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কুশকারী এলাকার যশাহার গ্রামে বাড়ি মৌসুমী মুর্মু ওরফে মাইনো নামের সতেরো বছর বয়সী এক কিশোরী গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে কুশকারী হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণীর ওই ছাত্রী মঙ্গলবার সকালে জমিতে কর্মরত তাঁর বাবা ও মাকে খাবার পৌঁছে দিয়ে আসে। বাড়িতে এসে একমাত্র ছোট বোনকে পরোটা কিনে আনবার জন্য বাইরে দোকানে পাঠিয়ে দেয়। এর পরেই শোওয়ার ঘরে ঢুকে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে মৌসুমী।

আরও পড়ুন: ক্যালিফোর্নিয়াতে ঋতাভরীকে সঙ্গ দিচ্ছেন ইনিই

বোন পরোটা নিয়ে ফিরে এসে ঘরে ঢুকে দেখে গলায় দড়ি বাধা অবস্থায় দিদির নিথর দেহ ঝুলছে। বোনের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীদের পাশাপাশি জমি থেকে ছুটে আসেন মা বাবা দুইজনেই। খবর পেয়ে বংশীহারি থানার পুলিশ যশাহার গ্রামে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি ঘটনার তদন্তও শুরু করেছে। প্রণয়জনিত না কি অন্য কোনও কারণে এই আত্মহত্যা। তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: কুর্তা পায়জামা নয়! শার্ট প্যান্ট পড়ে এবার যেতে হবে মাদ্রাসায়

---- -----