তারকেশ্বর: স্বামীজির স্মৃতি রক্ষার্থে প্রতি বছরের মতো এবছরও বড়দিনের উৎসবে মাতল আটপুর৷ বেলুড় মঠের উদ্যোগে আজ, রবিবার সারাদিন যীশুখ্রীষ্টের আরাধনা হবে হুগলির এই গ্রামে৷সেই উপলক্ষ্যে বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর মানুষ এসেছেন আটপুরে৷ সারাদিন ধরে চলবে প্রসাদ বিতরণ৷ সন্ধ্যে বেলায় বাইবেল পাঠ করবেন সন্ন্যাসীরা৷

কথিত আছে, রামকৃষ্ণ পরমংসদেব দেহ রাখার পর ১৮৮৬ সালে ২৪ ডিসেম্বর আটপুর গ্রামের বাবুরাম ঘোষের(পরে স্বামী প্রেমানন্দ) বাড়িতে নরেন্দ্রনাথ (তখনও স্বামী বিবেকানন্দ হয়নি)সহ রামকৃষ্ণের ন’জন শিষ্য আসেন৷ এখানেই তাঁর সন্ন্যাস গ্রহণ করেন৷ এবং এটাও শোনা যায়, সন্ধ্যেবেলায় তারা মাটিতে বসে প্রদীপ জ্বালিয়েছিলেন এবং বাইবেল পাঠ করেছিলেন৷ সেইসঙ্গে সেদিনই বেলুড় মঠ তৈরির প্রথম সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা৷

বেলুড় মঠ তৈরি হওয়ার পর মঠ কর্তৃপক্ষ এই ২৪ ডিসেম্বর দিনটিতে আটপুরে প্রেমানন্দ আশ্রমে ধুমধাম করে বড়দিন পালন করে৷ আক্ষরিক অর্থে বড়দিন হয়ে ওঠে এই দিনটা৷

----
--