স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: শহরের ব্যস্ততম রাস্তা৷ কিন্তু রাস্তার বেশিরভাগ অংশ জুড়ে পড়ে রয়েছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ি৷ ফেলে রেখেছে পুলিশ৷ যার জেরে নিত্যদিনই লেগে রয়েছে ছোটখাটো নানা সমস্যা৷ জলপাইগুড়ি কোতোয়ালী থানার পুলিশের বিরুদ্ধে এমনটাই অভিযোগ তুলল শহরবাসী৷

প্রসঙ্গত, শহরের ব্যস্ততম রাস্তাগুলির মধ্যে অন্যতম রাস্তা থানা মোড়। এই রাস্তা দিয়ে সদর হাসপাতাল, সুনিতীবালা হাই স্কুল, জেলা শাসক দফতর সহ একাধিক স্কুলের ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে শহরের বেশির ভাগ যাতায়াত করে থাকে। কিন্তু কোতোয়ালী থানার অন্তর্গত এলাকায় দুর্ঘটনাজনিত গাড়ি বা বালির গাড়ি বাজেয়াপ্ত করে রাস্তার উপর রেখে দেওয়া হয়। এই সব গাড়িগুলি কবে সারানো হবে সেই বিষয়ে কারোর জানা নেই৷ তবে এই গাড়িগুলির কারণে নাজেহাল হতে হয় শহরবাসীকে।

নাম বলতে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, ‘‘এই ভাবে কোনও সাধারণ মানুষ গাড়ি রাখলে পুলিশ জরিমানা করে দেয়। আর পুলিশি রক্ষক হয়ে রাস্তা দখল করে বসে রয়েছে৷ আর অন্যদিকে চালিয়ে যাচ্ছে সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফের প্রচার৷ পুলিশ বলে কথা তাই কেউ সাহস দেখায় না অভিযোগ করতে৷ তবে এইভাবে সাধারণ মানুষকে বিপাকে ফেলে রাস্তা দখল করে গাড়ি রাখা ঠিক নয়। বিষয়টি পুলিশ আধিকারিকদের দেখা প্রয়োজন।’’

এই প্রসঙ্গে জলপাইগুড়ি পুরসভার পুর-পরিষদের সদস্য তথা স্থানীয় পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সন্দীপ মাহাতো বলেন, ‘‘অ্যাক্সিডেন্ট, বালি বোঝাই ট্রাকগুলি যেভাবে রাস্তার উপর রেখে দেয় পুলিশ, এতে সমস্যা তো বাড়ে বই কমে না৷ হয়তো থানায় ভিতরে জায়গা নেই। তাই এভাবে গাড়িগুলি রেখে দেওয়া হয়েছে৷ আমার কাছেও বহুবার অভিযোগ এসেছে। বেশ কিছুদিন আগে বলা হয়েছিল গাড়িগুলি সরানোর কথা৷ তারপর গাড়িগুলি সরিয়ে দেওয়া হয়৷ কিন্তু ফের একই অবস্থা। এই রাস্তা শহরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা৷ এভাবে গাড়িগুলি থাকায় নিত্যদিনই সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে৷ আমাদের তরফ থেকে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হবে।’’

----
--