স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: “গব্বর সিংয়ের মহিলা সংস্করণ” এই ভাষাতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করলেন অধীর চৌধুরী। সদ্য পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি পদ হারিয়েছেন বাংলা রাজনীতির রবিনহুড। অধীরের বিজেপিতে যাওয়ার জল্পনাও ছড়িয়েছে। এরকম অবস্থায় ছাত্র হত্যা নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসে মমতা সরকারকে একহাত নিলেন অধীর।

রবিবার অধীর চৌধুরী নিজের ফেসবুক পেজে লেখেন, “মা-মাটি-মানুষের নেত্রী আপনার হাত আজ ছাত্র খুনের রক্তে রক্তাক্ত , শিক্ষক চাইলে ‘দিদি’ বলছেন ‘গোলি’ খা, ‘গব্বর সিং’-এর মহিলা সংস্করণ! ‘দিদি’-র মন্ত্রী ‘বাঁটুল-দি-গ্রেট’ খড়খড়ে গলায় ‘দিদি’র জন্য লড়ে যাচ্ছে । সত্যকে মিথ্যা, আর মিথ্যাকে সত্য প্রমাণিত করার করুণ প্রয়াস।”

উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে বাংলা শিক্ষক চেয়ে আন্দোলনরত ছাত্রদের উপর গুলি চালানোয় দু’জন ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। আন্দোলনকারী ছাত্রদের অভিযোগ পুলিশের গুলিতেই এই মৃত্যু। কিন্তু প্রশাসনের তরফে বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে। বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেস সব পক্ষই এই ঘটনার নিন্দা করে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে।

রবিবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সৌমেন মিত্র মাননীয় রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সাথে দেখা করে অবিলম্বে ইসলামপুরের ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানান। নবনিযুক্ত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বলেন, “যেহেতু রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধেই গুলি চালনার অভিযোগ এবং মুখ্যমন্ত্রী তথা পুলিশমন্ত্রী ও রাজ্য-পুলিশ প্রশাসন সে অভিযোগ অস্বীকার করছেন, তাই শাসক দলের পুলিশ-প্রশাসনের হাতে এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত কখনোই সম্ভব নয়।” ইসলামপুরের সাধারণ মানুষ এবং নিহতদের পরিবারবর্গের জন্য প্রকৃত সত্য উদঘাটন ও দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেন সৌমেন মিত্র।

--
----
--