২২ বছর পর বাংলাদেশে ফিরলেন সেই ‘বেদের মেয়ে জোসনা’

ঢাকা: বাইশ বছর পর ঘরে ফেরা৷ ঘর মানে নিজের দেশ৷ শেষ পর্যন্ত দেশেই ফিরে এলেন অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষ৷ বৃহস্পতিবার তিনি কলকাতা থেকে ঢাকায় এসেছেন৷ তাঁর অভিনীত ঢালিউডে অন্যতম ব্যবসা সফল ছবি ‘বেদের মেয়ে জোসনা’৷ ১৯৮৯ সালে ছবি প্রথমে বাংলাদেশ পরে পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছিল৷ দর্শকদের ভিড়ে উপচে পড়েছিল দুই বাংলার হল৷

বেদের মেয়ে জোসনা ছবিতে অঞ্জু ঘোষ এবং ইলিয়াস কাঞ্চন অভিনয় করেছিলেন। চলচ্চিত্রটি পশ্চিমবঙ্গেও পুনর্নির্মাণ করে মুক্তি দেওয়া হয়। মূল ভূমিকায় অভিনয় করেন অঞ্জু ঘোষ এবং চিরঞ্জীত। এর কয়েকবছর পরে বাংলাদেশ ছেড়েছিলেন অঞ্জু ঘোষ৷ কলকাতায় থাকতে শুরু করেন৷ মনে করা হয়, অনেক অভিমানেই তিনি নিজেকে বাংলাদেশি ছবির জগত থেকে দূরে রেখেছিলেন৷ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আমন্ত্রণে এবার তাঁর এই ঢাকা সফর৷ এমনই জানিয়েছেন, সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও চিত্রনায়ক জায়েদ খান।

তিনি বলেন, প্রায় ২২ বছর পর শিল্পী সমিতির আমন্ত্রণে অঞ্জু ঘোষ ঢাকায় এসেছেন। এক আত্মীয়ের বাড়িতে উঠেছেন। আমি এরমধ্যে তার সঙ্গে দেখা করে এসেছি। আমি মনে করি ঢাকাই চলচ্চিত্রে এখনও তাঁর মতো গুণী অভিনেত্রীর প্রয়োজন আছে। সেই ভাবনা থেকেই তাকে ঢাকায় আসার আমন্ত্রণ জানাই। তিনি আমাদের ডাকে এসেছেন, এটা অনেক বড় সুখের বিষয়।

আগামী ৯ সেপ্টেম্বর অঞ্জু ঘোষ এফডিসিতে যাবেন। সেখানে শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে। সরাসরি কথা বলবেন উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে। এরপর ১০ সেপ্টেম্বর তিনি আবারও কলকাতায় ফিরে যাবেন।

বাংলাদেশি শিল্পী অঞ্জু ঘোষ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভোলানাথ অপেরার হয়ে যাত্রায় নৃত্য পরিবেশন করতেন ও গান গাইতেন। ১৯৮২ সালে ‘সওদাগর’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। এই ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে সফল ছিল। রাতারাতি তারকা বনে যান। তবে তাঁর অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ সর্বকালীন সফল ব্যবসা করেছিল৷ ১৯৯১ সালে বাংলা চলচ্চিত্রে নতুনের আগমনে তিনি ব্যর্থ হতে থাকেন। এর কয়েক বছরের মাথায় তিনি দেশ ছেড়ে চলে যান ভারতে এবং কলকাতার চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে থাকেন। সর্বশেষ তিনি ভারতের বিশ্বভারতী অপেরায় যাত্রাপালায় নিয়মিত অভিনয় করেছেন।

----
-----