গান্ধীর প্রথম পছন্দ ছিল জিন্না! বিতর্কে ক্ষমা চাইলেন দলাই লামা

মুম্বই: প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুকে নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য এবার ক্ষমা চাইলেন তিব্বতি ধর্মগুরু দলাই লামা৷ শুক্রবার তিনি বলেন, ‘‘আমার মন্তব্য বিতর্ক তৈরি করেছে৷ যদি কিছু ভুল বলে থাকি তার জন্য ক্ষমা চাইছি৷’’

আরও পড়ুন: ‘মুসলমান খেদানো শুনেছিলাম! এবার হিন্দুদেরও খেদানো হচ্ছে’

কয়েকদিন আগে গোয়াতে একটি অনুষ্ঠানে এসে জওহরলাল নেহরুকে আত্মকেন্দ্রিক বলে উল্লেখ করেছিলেন৷ সেই সঙ্গে জানিয়েছিলেন, নেহরু নয়, প্রধানমন্ত্রী হিসাবে গান্ধীর প্রথম পছন্দ ছিল জিন্না৷ বলেছিলেন, ‘‘যদি মহাত্মা গান্ধীর ইচ্ছা অনুযায়ী জিন্নাকে প্রধানমন্ত্রী করা হলে আজ দেশভাগ হত না৷ ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য আত্মকেন্দ্রিক মনোভাবের পরিচয় দিয়েছিলেন জওহরলাল নেহরু।’’

- Advertisement -

গোয়া ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্টে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা বলেছিলেন তিনি। এক ছাত্রের প্রশ্নের উত্তরে ৮৩ বছর বয়সী ধর্মগুরু বলেছিলেন, “গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাই ভাল। কয়েকজন মানুষের হাতে ক্ষমতা কুক্ষিগত থাকা খুবই ভয়ঙ্কর।” এই প্রসঙ্গেই উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, “ভারতের কথাই ভাবুন। মহাত্মা গান্ধী ভীষণভাবে চেয়েছিলেন জিন্নাকে প্রধানমন্ত্রী করা হোক। কিন্তু পণ্ডিত নেহরু তা মেনে নেননি। আমার মনে হয় এটা ছিল নেহরুর আত্মকেন্দ্রিক মনোভাবের পরিচয়। মহাত্মা গান্ধীর ইচ্ছা বাস্তবায়িত হলে ভারত-পাকিস্তান এক হয়ে থাকত।”

আরও পড়ুন: বাদল অধিবেশনের শেষ দিনেও রাজ্যসভায় পাশ হল না তিন তালাক বিল

তিনি উল্লেখ করে বলেছিলেন, “পণ্ডিত নেহরু খুবই বিচক্ষণ ব্যক্তি ছিলেন। কিন্তু ভুল তো হয়েই যায়।” গত মার্চ মাসে অপ্রত্যাশিতভাবে দলাই লামার সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে শুরু করেছে নয়াদিল্লি। বলা হয়, চিনের সঙ্গে সম্পর্ক খুবই কঠিন। দলাই লামার অনুষ্ঠান থেকে দূরে থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয় কেন্দ্রীয় নেতাদের। কারণ হিসাবে চিনের সঙ্গে সম্পর্ক খুবই স্পর্শকাতর বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

Advertisement ---
---
-----