ম্যাচ হারায় সমর্থকদের হাতে প্রহৃত রেফারি

বর্ধমান (পূর্ব বর্ধমান): প্রথম ডিভিশন ফুটবল লিগের একটি ম্যাচে রেফারিকে মারধর করল সমর্থকরা৷ ম্যাচ হেরে যাওয়ায় বর্ধমানের বাবুরবাগ বয়েজ অ্যাসোসিয়েশনের সমর্থকরা মাঠের ভিতর ঢুকে রেফারিকে মারধর করে৷ এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল স্পন্দন ময়দানে।

বৃহস্পতিবার বর্ধমান জেলা স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত প্রথম ডিভিশন ফুটবল লিগের ম্যাচে কল্পতরু সঙ্ঘ বনাম বাবুরবাগ বয়েজ অ্যাসোসিয়েশনের খেলা ছিল। খেলা শুরু হওয়ার নির্দিষ্ট সময় ছিল বিকেল সাড়ে তিনটে। কিন্তু এদিনই বামেদের ডাকে আইন অমান্য ও জেল ভরো কর্মসূচী ছিল। বর্ধমান কোর্ট কম্পাউন্ড এলাকা থেকে জেলা পুলিশ প্রায় শতাধিক বাম নেতা কর্মীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর তাঁদের সরাসরি স্পন্দন ময়দানে নিয়ে চলে আসে পুলিশ। আর এখানেই তৈরি হয় বিপত্তি।

পড়ুন: ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরি আটকাতে বল ছুঁড়ে বাউন্ডারিতে পাঠালেন বোলার

বিডিএসএ কর্তৃপক্ষ পুলিশকে এই মাঠে খেলা রয়েছে জানালেও প্রথমে তারা বিষয়টি গুরুত্ব দিতে চায়নি। পরে জেলাশাসকের হস্তক্ষেপে পুলিশ গ্রেফতার করা আন্দোলনকারীদের মাঠ থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় প্রায় এক ঘণ্টা সময় নষ্ট হয় খেলা শুরু করতে। এদিকে খেলা শুরু হওয়ার পর থেকেই উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করে। প্রথমার্ধ গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হয়। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হওয়ার পর খেলা শেষ হওয়ার মাত্র দু মিনিট আগে কল্পতরু সঙ্ঘের হয়ে গৌতম রাজবংশী গোল করে দলকে এগিয়ে দেয়।

তার পর নির্দিষ্ট সময়ে খেলা শেষের বাঁশি বাজিয়ে দেন রেফারি। কিন্তু খেলা শেষ হওয়ার এই সিদ্ধান্ত মানতে চায়নি বাবুরবাগের কিছু উত্তেজিত সমর্থক। তারা মাঠে ঢুকে রেফারি মানস মণ্ডলকে আক্রমণ করে। অভিযোগ, মাঠের ঝামেলা সামলাতে গিয়ে অপদস্থ হতে হয়েছে বিডিএসএ-এর অবজারভার শ্যামল মণ্ডল এবং সুবীর বিশ্বাসকে। মাঠে ছুটে আসেন তৃণমূল কংগ্রেসের কাউন্সিলার সনত বক্সি। তাঁর উদ্যোগে রেফারি সহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের মাঠ থেকে বের করে নিয়ে আসা হয়।