মুর্শিদাবাদের পর এবার মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতিও তৃণমূলে

ইংরেজবাজার: অধীর গড়ে ভাঙন ধরিয়ে তৃণমূলের দখলে এবার মালদহ৷ জল্পনা ছিলই, তৃণমূলের দখলে যেতে পারে মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতি। গোটা রাজ্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মালদহের মানিকচকেও দল বদলের হিড়িক চলছেই৷ অবশেষে, সব জল্পনা-কল্পনার ইতি টেনে সিপিএমের হাত থাকা মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতিও দখল করল তৃণমূল। সিপিএমের ১৪ জন, সিপিআইয়ের একজন সদস্য এবং তিন জন কংগ্রেস সদস্যসহ মোট ১৮ জন আজ তৃণমূলে নাম লেখালেন৷ ফলে, ১৮ জনের দলবদলের জেরে মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতি দখলে গেল তৃণমূলের।

আজ, দুপুরে মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি রাখী মণ্ডলের অপসারণের পক্ষে মোট ৩১ জন সদস্যের মধ্যে ১৬ জন সদস্য ভোট দেন। গত ২৬ আগস্ট ১৩ জন তৃণমূল সদস্যের হাত ধরে দু’জন সিপিএম ও এক জন সিপিআই সদস্য সভাপতি রাখী মণ্ডলের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনেন৷ তারপর থেকে মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতি গঠন করতে পারবে কিনা তৃণমূল সেই নিয়ে বহু জল্পনার পর আজ ১৬-১৫-র লড়াইয়ে জয়লাভ তৃণমূল।

এই প্রসঙ্গে সিপিএমের মালদহ জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য দেবজ্যোতি সিনহা বলেন, ‘‘গোটা রাজ্যে তৃণমূল নেতৃত্বে ধ্বংস লীলা চলছে। আজ সভাপতি অপসারণের দিন ছিল। আমাদের সভাপতি রাখী মণ্ডলকে অপসারণের পক্ষে ১৬ জন ভোট দিয়েছেন। তবে, এখনই তৃণমূলের দখলে পঞ্চায়েত সমিতি তা বলা ভুল৷ সব কিছুই আমাদের দখলে।’’

মানিকচক ব্লক তৃণমূল সভাপতি সুনন্দা মজুমদার বলেন, ‘‘আগামীতে আস্থা ভোটে আরও বেশি সদস্য সংখ্যা হবে তৃণমূলের। মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতি তৃণমূলের দখলেই আসবে। রাজ্যে সর্বত্রই তৃণমূলের দখলে আসছে। বিরোধীরা ভুলভাল বকছে৷ ওদের এখনও নিজেদের ঘর সামলাতে হবে।’’
মানিকচক বিডিও উৎপল মুখার্জি বনলে, ‘‘আজকে সভাপতি অপসারণের প্রস্তাব দিন ছিল। সমস্ত ৩১ জন সদস্যের উপস্থিতিতেই ১৬ জন সদস্য সভাপতি অপসারণের পক্ষে রায় দিয়েছেন। মহকুমা শাসকের নির্দেশেই দিন ধার্য করে নতুন সভাপতি গঠন হবে।’’

গোটা ঘটনার পর এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা তৃণমূলের মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতির বোর্ড গঠন করার।

---- -----