বিজেপি নয় রাজ্যপালের ফোন পান মুফতি

শ্রীনগর: উপত্যকায় মুফতি জামানার শেষ৷ খবরটা পেলেন রাজ্যপালের কাছে৷ মুখ্যমন্ত্রীত্বের শেষ দিনে মেহবুবা মুফতির অভিমানের কারণটা হয়ত এই অকস্মাৎ ব্রাত্য হওয়া৷ রাজনৈতিক ষড়য়ন্ত্র বলা ভুল হবে, তবে বিজেপির ফোন না পাওয়াকে অরাজনৈতিক পদক্ষেপ বলেই মনে করছেন মেহবুবা৷

সরকারি কাজ চলছিল আর পাঁচটা দিনের মতই৷ মেহবুবার দফতরেই তখন সরকারি আধিকারিকদের বৈঠক৷ নিজের বাসভবনেই ছিলেন মুফতি৷ হঠাৎই রাজ্যপাল এন এন ভোরার ফোন পান চিফ সেক্রেটারি বিবি ভ্যাস৷ রাজ্যপাল জানান, জরুরী ভিত্তিতেই মুফতি যেন তাঁকে ফোন করে৷ ঘটনাটি বিজেপির সাংবাদিক বৈঠকের ৫ মিনিট আগে৷ ঘড়িতে দুপুর ২টো৷

মেহবুবা রাজ্যপালকে ফোন করলেন৷ জানলেন, বিজেপির সমর্থন তিনি আর পাবেন না ৷ জম্মু-কাশ্মীর বিজেপির প্রেসিডেন্ট রবিন্দর রায়নার দেওয়া সেই চিঠি মুফতিকে পড়ে শোনান রাজ্যপাল৷ কিছুক্ষণ চুপ থেকে মুফতি জানান,কিছুক্ষণের মধ্যেই পদত্যাগ পত্র জমা দেবেন তিনি৷ রাজ্যপালের বিজেপির প্রসঙ্গ তুললেন মুফতি বলেন ‘ বিজেপির সঙ্গে আলাচনার প্রয়োজন মনে করছি না’৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই সাংবাদিক বৈঠকে বসে বিজেপি৷

- Advertisement -

সাংবাদিক সম্মেলনে এসে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন জম্মু কাশ্মীরের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী৷ মেহেবুবা বললেন, ‘জম্মু কাশ্মীরকে শত্রুপক্ষের এলাকা ভাবে কেন্দ্রীয় সরকার৷ আমরা কখনোই তা ভাবি না৷ আমরা আর্টিক্যাল ৩৭০ ও ৩৫এ কে রক্ষা করে চলি’৷

মেহবুবা জানান, বিজেপির সরে আসার ঘটনায় তিনি অবাক হননি৷ ক্ষমতায় থাকার জন্য বিজেপির সঙ্গে পিডিপি জোট বাধেনি৷ বরং সংঘর্ষবিরতি যাতে লঙ্ঘন না হয়, সেই উদ্দেশ্যেই এই জোট৷ পাকিস্তানে গিয়ে ১১ হাজার যুবকের বিরুদ্ধেও মামলাএ তুলে নিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী৷ যা জোটের পক্ষে ইতিবাচক ছিল৷

মেহবুবা মুফতি পদত্যাগ করলেও রাহুল,ওমরদের সমর্থন পায়নি তাঁর দল৷ উপত্যকায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারিকে সমর্থন করে ওমর আবদুল্লা৷ কংগ্রেসও পিডিপির সঙ্গে জোটের প্রসঙ্গকে উড়িয়ে দেয় ৷ তাই উপত্যকায় মুফতির অস্তিত্ব কতটা সদর্থক তা নিয়ে জট থেকেই যাচ্ছে৷

Advertisement ---
---
-----