বাজপেয়ীর শোক জ্ঞাপনে বাধা দেওয়ায় আক্রান্ত AIMIM কাউন্সিলর

মুম্বই: প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীকে সম্মান জানাতে পুরসভায় শোক জ্ঞাপন করতে চেয়েছিল একদল বিজেপি কাউন্সিলর। শাসক কাউন্সিলরদের সেই প্রস্তাবে বিরোধিতা করেছিলেন এআইএমআইএম কাউন্সিলর সৈয়দ মাতিন। সেই কারণেই তাঁর কপালে জুটল প্রবল প্রহার।

ঘটনাটি মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গাবাদ পুরসভায়। শুক্রবার পুরসভায় প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে সম্মান জানাতে শোক জ্ঞাপন করার পরিকল্পনা করে বিজেপি কাউন্সিলরেরা। বাজপেয়ীকে শোক জ্ঞাপনের বিরোধিতা করায় আইএমআইএম কাউন্সিলর সৈয়দ মাতিনকে জুতো পেটা করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

আক্রান্ত কাউন্সিলর সৈয়দ মাতিনকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে পুরসভায় শিবসেনা কাউন্সিলরেরা। তাঁদের উদ্যগেই বিজেপি কাউন্সিলরদের খপ্পর থেকে মুক্তি মেলে সৈয়দের। তাঁর কথায়, “শোক জ্ঞাপনের অনুষ্ঠানের আমি বিরোধিতা করেছিলাম। আর বিরোধিতা করাটা আমার গণতান্ত্রিক অধিকার। তবুও আমায় আক্রান্ত হতে হল।”

- Advertisement -

যদিও এই সমগ্র বিষয়টিতে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছে এআইএমআইএম শিবির। দলের পক্ষ থেকে নাসির সিদ্দিকি বলেছেন, “আমাদের নেতা মাতিন শোক জ্ঞাপনের বিরোধিতা করল। বিজেপি কাউন্সিলরেরা তাঁকে মারল কিন্তু শিবসেনা কাউন্সিলররা উদ্ধার করল। এর পিছনে কোনও গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে মনে হচ্ছে।”

কাউন্সিলর সৈয়দ মাতিনকে মারধোরের অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন ঔরঙ্গাবাদ পুরসভার বিজেপি কাউন্সিলরেরা। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী সম্পর্কে অত্যন্ত কুরুচীকর মন্তব্য পেশ করেছিল। সেই কারণেই আমাদের কাউন্সিলররা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তাঁদের কথায়, “আমরা সৈয়দ মাতিনকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেছিলাম। অটলজি সম্পর্কে মাতিন এমন কথা বলেছিল যেটা মুখে আনা যায় না। সেই কারণেই আমরা আর নিজেদের উপরে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারিনি।”

Advertisement ---
---
-----