‘চিতা’ সরিয়ে সিয়াচেনে আসছে অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার ‘চিতল’

সিয়াচেন: ভারতীয় বিমানবাহিনীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি ইউনিট হল ‘সিয়াচেন পায়োনিয়ারস’। বিশ্বের উচ্চতম যুদ্ধক্ষেত্রে মোতাবেন রয়েছে এরা। সেই ‘সিয়াচেন পায়োনিয়ারস’-এ ব্যবহৃত চিতা চপার সরিয়ে এবার আনা হবে ‘চিতল’। অত্যাধুনিক ইঞ্জিন দিয়ে তৈরি এই নতুন চপার।

১১৪ হেলিকপ্টার ইউনিটেরই আর এক নাম ‘সিয়াচেন পায়োনিয়ারস’। ২২,০০০ ফুট উঁচুতে থাকা সেনাদের জন্য এটা একটা লাইফলাইন বলা চলে।  এরাই খাবার বা অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছে দেয় সেনা জওয়ানদের কাছে।  সিয়াচেনের বিভিন্ন পোস্টে জিনিসপত্র দিয়ে আসে তারা। বর্তমানে ‘সিয়াচেন পায়োনিয়ারস’-এ রয়েছে ১৪টি হেলিকপ্টার যার মধ্যে ১০টি চিতল ও ৪টি চিতা। ১৯৭০-এর প্রথম তৈরি হয় এই ইউনিট।

চিতল হল চিতার থেকে উন্নততর ইঞ্জিনে তৈরি হেলিকপ্টার।  এতে থাকরে ফরাসি তার্বোমেকা ইঞ্জিন। লাইট হেলিকপ্টার ‘ধ্রুভ’-এও থাকে একই ইঞ্জিন। ২০০২ তে আনা হয় এই চিতল। উইং কমান্ডার এস রমেশ জানান, চিতলের পারফরম্যান্সে সবাই অত্যন্ত খুশি। এর বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন তো বটেই, পাশাপাশি এর মাধ্যমে বেশি জিনিসপত্রও বহন করা যায়। যে কোনও আবহাওয়াতেই জিনিস নিয়ে চিতল পৌঁছে যেতে পারে সিয়াচেন হিমবাহে। কার্গিল থেকে পূর্ব লাদাখ পর্যন্ত কাজ করে এই ‘সিয়াচেন পায়োনিয়ারস’। উচ্চতম হেলিকপ্টার ল্যান্ডিং-এর জন্য লিমকা বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছে এই ইউনিট। প্রায় ২৫০০০ ফুট উঁচুতে ল্যান্ড করে এই হেলিকপ্টারগুলি।

Advertisement
---