‘ঐশ্বর্যা ফর্সা বলেই বেশি পছন্দ বিপ্লবের’

নয়াদিল্লি: যথাযথ সুন্দরী নন ডায়না হেলেন। তাঁর থেকে ঢের বেশি সুন্দর দেখতে ঐশ্বর্যা রাই। এমনই দাবি করেছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই তাঁকে আক্রমণ করলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

আগরতলার প্রজ্ঞা ভবনে হাতে তৈরি নানা জিনিসপত্রের ওপর একদিনের ওয়ার্কশপে গিয়ে তিনি বলেন, ভারতীয়রা মেয়েদের মধ্যে দেবী লক্ষ্মী, সরস্বতীকে খোঁজেন। ঐশ্বর্যা ভারতীয় নারীদের প্রতিনিধি। তিনি মিস ওয়ার্ল্ড হয়েছেন, ঠিক আছে। কিন্তু ডায়ানা হেডেনও মিস ওয়ার্ল্ড হয়েছেন। সেটা কি আপনারা ঠিক বলে মনে করেন? তাঁর মতে, প্রাক্তন মিস ওয়ার্ল্ড ডায়ানা হেডেন ভারতীয় নারীদের প্রতিনিধি নন, ঐশ্বর্যা রাই একমাত্র সেই তকমা পেতে পারেন।

- Advertisement -

এই বিষয়টি নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী বিপ্ল্বকে আক্রমণ করেছেন বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা। টেনে এনেছেন বর্ণবাদের ইস্যুকেও।

বিপ্লব দেবকে নিয়ে বিতর্ক প্রকাশ্যে আসতেই তসলিমা নাসরিন ট্যুইট করেন, “ঐশ্বর্যা রাইয়ের গারে রঙ ডায়না হেলেনের থেকে বেশি উজ্জ্বল। সেই কারণেই সম্ভবত বিশ্ব সুন্দরী হিসেবে ডায়ানার তুলনায় ঐশ্বর্যাকে এগিয়ে রেখেছেন বিপ্লববাবু।”

ভারতে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় ভারতীয় মহিলাদেরকেই সম্মান দেওয়া উচিত বলে দাবি করেছিলেন বিপ্লব দেব। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, এ ধরনের সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার ফলাফল আগে থেকে ঠিক করা থাকে। টানা পাঁচ বছর ভারত থেকে যেই গিয়েছেন, তিনিই মিস ওয়ার্ল্ড বা মিস ইউনিভার্স হয়েছেন। ডায়ানা হেডেনও জিতে যান সেই সুযোগে। তাঁর এই খেতাব জেতার কথা ছিল না বলে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আগে ভারতীয় মহিলারা প্রসাধনী ব্যবহার করতেন না। শ্যাম্পু নয়, তাঁরা চুল ধুতেন মেথি ভেজানো জলে, গায়ে মাখতেন মাটি। এইসব সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার আয়োজকরা আন্তর্জাতিক মার্কেটিং মাফিয়া। এ দেশে বিরাট বাজারের খোঁজ পেয়েছে ওরা। তাই দেশের কোণে কোণে এখন বিউটি পার্লার গজিয়ে উঠেছে। মাফিয়ারা বাজার ধরতেই এসব করছে বলে মনে করেন বিপ্লব দেব।

ভারতীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরার কথা বলেছেন বিপ্লব দেব। তাঁকে পালটা জবাব দিয়েছেন বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিন। বাংলাদেশি হয়েও মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের থেকেও তিনি ভালো হিন্দি বলতে পারেন বলে দাবি করেছেন তসলিমা।

Advertisement ---
---
-----