বেজিং: সিকিম নিয়ে চরম অশান্তি এখনও বহাল। দুই পক্ষই সেনা মোতেয়ন রাখার সিদ্ধান্ত থেকে অনড় দু’পক্ষই। তার মাঝে চিনা প্রেসিডেন্ট জি জিংপিং-এর মুখোমুখি হলেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল।

চিনের এনএসএ ইয়াং জেইচির সঙ্গে বৈঠক হয়েছে অজিত দোভালের। তার পরের দিনই জিংপিং-এর বৈঠকে তাঁকে উপস্থিত থাকতে দেখা গেল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন BRICS-এর সদস্য অন্যান্য দেশগুলির প্রতিনিধিরাও। ছিলেন ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও রাশিয়ার প্রতিনিধিও। তবে এখানে ডোকালাম ইস্যু নিয়ে কথা হয়েছে কিনা তা এখনও জানা যায়নি।

অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার, চিনের রাজধানী বেজিংয়ে বসেছিল ব্রিকস গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির এনএসএ-পর্যায়ের বৈঠক। সেখানেই চিনা এসএসএ ইয়াং জিয়েচির সঙ্গে সাক্ষাত করেন দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে দুই দেশের মুখোমুখি হওয়ার বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।

চিনা সংবাদমাধ্যমের দাবি, ওই বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক, আঞ্চলিক, আন্তর্জাতিক ও বহুপাক্ষিক বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা হয়। তাতে দ্বিপাক্ষিক সমস্যা নিয়ে বেজিং নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়েছে। যদিও, এই বিষয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা প্রকাশ করা হয়নি।

প্রসঙ্গত, দোভাল ও ইয়াং, উভয়েই ভারত-চিন বর্ডার মেকানিজমের বিশেষ প্রতিনিধি। ফলে, ডোভালের আগমনে ডোকালামকে ঘিরে দু’দেশের মধ্যে বহমান সীমান্ত সমস্যার সমাধানসূত্র মিলতে পারে বলে আশাপ্রকাশ করছে কূটনৈতিক মহল। গত একমাস ধরে সিকিম সেক্টরে দুই সেনার মধ্যে সংঘাতের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। ডোকালামে চিন একটি সড়ক নির্মাণ করছিল। ভারত তাতে আপত্তি জানায়। তারপর থেকেই দুদেশের মধ্যে ডোকালামকে নিয়ে চলছে তুমুল চাপানউতোর।

----
--