লখনউ: অবশেষে মুখ খুললেন উত্তর প্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা সমাজবাদী পার্টির ‘দ্বিতীয় সুপ্রিমো’ অখিলেশ সিং যাদব৷ রবিবার সংবাদ মাধ্যমের সামনে তাঁর স্পষ্ট অভিযোগ- মায়াবতীর সঙ্গে জোট করার কারণে ভীত বিজেপি৷ এই জোট ভাঙতে সিবিআই জুজু দেখানো হচ্ছে৷ তাঁর মন্তব্যের পরেই প্রবল আলোড়িত গো বলয়ের রাজনৈতিক মহল৷

উত্তর প্রদেশে শাসক বিজেপি৷ আর সেই শক্তির বিরোধিতা করা অ-বিজেপি জোট করেছে বুয়া-বাবুয়া৷ হিন্দি তথা গো বলয়ের এই নামেই সুপরিচিত হয়েছে অখিলেশ-মায়াবতীর হাত মিলিয়ে নেওয়া৷ সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজপার্টির বিরাট ভোট ব্যাংক একত্রিত হলে বিজেপির পক্ষে সমূহ ক্ষতি তা আগেই কয়েকটি উপনির্বাচনে দেখা গিয়েছে৷ এই জোট আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা দিতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ খোদ বিজেপি মহলেও একই রিপোর্ট তুলে ধরা হয়েছে৷

শনিবার লখনউ সহ উত্তর প্রদেশের কয়েকটি শহরে একসঙ্গে তল্লাশি অভিযান চালায় সিবিআই৷ অবৈধ বালি খাদানের সঙ্গে জড়িতদের ধরতেই অভিযান বলে মনে করা হয়েছে৷ এই মামলায় জড়িয়ে গিয়েছেন আইএএস আধিকারিক বি.চন্দ্রকলা৷ তাঁর সঙ্গে সুসম্পর্কের কারণে মুলায়ম সিং পুত্র অখিলেশ যাদবকে নিয়েও তুমুল চর্চা৷ অভিযোগ, অখিলেশ মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন বালি খাদানে অনিয়ম ধরা পড়ে৷ মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি রাজ্যের খনি সংক্রান্ত দফতরের দায়িত্বে ছিলেন অখিলেশ যাদব৷

শনিবারই নয়াদিল্লিতে সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজ পার্টির জোট নিয়ে দীর্ঘ বৈঠক হয়৷ সেই বৈঠকের কিছু পরেই লখনউ, কানপুর, হামিরপুর ও নয়ডা সহ বিভিন্ন স্থানে শুরু হয় সিবিআই অভিযান৷ এর পরেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, সপা-বসপা জোট কি তবে রাজ্য ও কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপির পক্ষে ভয়ের কারণ হয়ে গেল ?রবিবার সেই রেশ ধরেই অখিলেশ সিং যাদব জানিয়ে দিলেন, জোটের ভয়েই সিবিআই তদন্ত শুরু করানো হয়েছে৷

--
----
--