প্রতীকী ছবি

মুম্বই: বিষয়টা অনেকটা ছিল রুমাল আর হয়ে গেল বেড়ালের মতো। জন্মেছিল মেয়ে হয়ে। পরে সেই সন্তানই হয়ে গেল ছেলে।

কোনও রুপান্তরকামী ব্যক্তির লিঙ্গ পরিবর্তনের ঘটনা নয়। একেবারেই স্বাভাবিক এবং প্রাকৃতিক নিয়মেই ঘটল সব কিছু। যা দেখে রীতিমতো তাজ্জব সকলে।

মহারাষ্ট্রের ভিদ জেলার বাসিন্দা মহম্মদ খান পেশায় ট্রাক চালক। বছর পাচেক আগে তাঁর স্ত্রী একটি সন্তানের জন্ম দেয়। সেই সন্তান কন্যা বলেই জানতো সকলে। জন্মদাতা-দাত্রীরাও তেমনই মনে করেছিলেন।

নিজেদের সন্তানকে মেয়ের মতো করে বড় করছিলেন তাঁরা। সেটাই খুব স্বাভাবিক ছিল। কারণ সন্তান আমনের শরীরে ছিল না কোনও পুরুষাঙ্গ। কিন্তু তাল কাটল বছর তিনেক পরে। আমনের শরীরে দেখ গেল ছোট্ট একটি পুরুষাঙ্গ।

আমনের শরীরের যথাস্থানে পুরুষাঙ্গ গজালেও তা ছিল অসম্পূর্ণ। গঠন স্পষ্ট ছিল না। সময়ের সঙ্গে বৃদ্ধিও ঘতছিল না সেই পুরুষাঙ্গের। গত সপ্তাহে হয়েছে আমনের অস্ত্রোপচার। মুম্বইয়ের সেন্ট জর্জেস সরকারি হাসপাতালে হয়েছে সেই অস্ত্রোপচার। গরিব ট্রাকচালক মহম্মদ খানের থেকে চিকিৎসা বাবদ কোনও খরচ নেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

----
--