চা-বাগানের শিক্ষা যাচাই হবে মমতার আলোরণে

আলিপুরদুয়ার: চা-বাগানে শিক্ষার হাল কেমন৷ জানতে চায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন৷ তাই মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে একটি অভিযানের পরিকল্পনা নিল আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন৷ অভিযানের নাম ‘আলোরণ’৷

মঙ্গলবার নিয়ে আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসনের সদর কার্যালয় ডুয়ার্সকন্যায় একটি বৈঠক হয়৷ আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক নিখিল নির্মল জেলার ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটদের সঙ্গে এই বৈঠক করেন৷ ওই বৈঠকেই এই বিষয়ে আলোচনা হয়৷

আরও পড়ুন: আরও ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস! জারি হল লাল সতর্কতা

- Advertisement -

প্রশাসন সূত্রে খবর, চা-বাগানের স্কুলগুলির কী পরিস্থিতি তা জানতে চায় রাজ্য সরকার৷ চালু চা-বাগান ছাড়াও বন্ধ ও অচল মিলিয়ে মোট ২০টি চা-বাগানকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে৷ তালিকায় রয়েছে ৭৩টি স্কুল৷ প্রাথমিক, শিশুশিক্ষা, উচ্চ-প্রাথমিক, হাইস্কুল সবস্তরই রয়েছে ওই তালিকায়৷

কী হবে ওই স্কুলগুলিতে? আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার WBCS আধিকারিকরা ওই স্কুলগুলিতে পরিদর্শন করবেন৷ মাসে দু’বার হবে ওই পরিদর্শন৷ চলতি মাস থেকেই শুরু হয়ে যাচ্ছে পরিদর্শনের কাজ৷

আরও পড়ুন: পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলাশাসক পদে পুনরায় উত্তরা সিং হাজরা

কী দেখবেন তাঁরা? প্রশাসন সূত্রে খবর, সামগ্রিকভাবে স্কুলের কাজের সবকিছুই খতিয়ে দেখা হবে৷ পড়ুয়া ও শিক্ষকদের উপস্থিতির হার কতটা তা জানবে প্রশাসন৷ উপস্থিতির হার খারাপ হলে, তা নিয়ে স্কুলের কৈফয়ত তলব করা হবে৷ তাছাড়া স্কুলের রেজাল্ট, মিড ডে মিলের গুণগত মানও খতিয়ে দেখা হবে৷ তাও খারাপ হলে স্কুল কর্তৃপক্ষকে জবাবদিহি করতে হবে প্রশাসনের কাছে৷

আরও পড়ুন: রক্তাল্পতা মুক্ত ভারত গড়তে হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রশাসনের ওই সূত্র জানাচ্ছে, আলোরণ নামের এই অভিযানের মূল লক্ষ্য স্কুলে স্কুলে ড্রপ আউট কমানো৷ উপস্থিতির হার বাড়ানো৷ তাই কেন বাড়ছে ড্রপ আউট আর কীভাবে বাড়ানো যায় উপস্থিতির হার, সেটাও খতিয়ে দেখতে চায় প্রশাসন৷ তাই প্রতিবার পরিদর্শনের সময় পড়ুয়া, অভিভাবক ও শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক করা হবে৷

আরও পড়ুন: একেবার সস্তায় অসাধারণ একটি earphone আনল JBL

Advertisement ---
-----