শঙ্কর দাস, বালুরঘাট: সরকারি হাসপাতালে মুমূর্ষু রোগীদের জন্য আনা হল অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা৷ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় এই প্রথমবার৷ রাজ্য সরকারের তরফে দেওয়া অত্যাধুনিক এই অ্যাম্বুলেন্সটির দেখভাল ও পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে খোদ পুলিশপ্রশাসন৷ এই অ্যাম্বুলেন্সের ভিতরে সবসময় দু’জন সিভিক ভলান্টিয়ার্স থাকবেন৷ যাঁরা রোগীদের দেখভাল ও তাঁদের লাইফ সাপোর্ট দেওয়ার কাজ করবেন৷ জেলা থেকে কলকাতা অথবা দূরবর্তী অন্য হাসপাতালে রোগী নিয়ে পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে এই অ্যাম্বুলেন্স প্রান্তিক জেলা দক্ষিণ দিনাজপুরে খুবই কার্যকরী হবে বলে সকলে মনে করছেন৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মতে দক্ষিণ দিনাজপুরে এই প্রথম সিসিইউ অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু হতে চলেছে৷

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই নবান্ন থেকে অত্যাধুনিক সুবিধাসম্পন্ন এই অ্যাম্বুলেন্স দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে পৌঁছে গিয়েছে৷ অ্যাম্বুলেন্সের ভিতর রয়েছে কার্ডিয়াক কেয়ারের জন্য যেমন রয়েছে সিসিইউ৷ তেমনই মুমূর্ষু রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছনোর সময় রাস্তায় গাছ পড়ে বাধার মুখে পড়লে তা থেকে উদ্ধার পেতে কুঠার ও করাত মেশিন-সহ যন্ত্রপাতিও থাকছে৷

আরও পড়ুন: রোজ ভালবাসার আগুনে পুড়ছে শুভশ্রী

সোমবার সকাল থেকে সিসিইউ অ্যাম্বুলেন্সের জন্য সিভিক ভলান্টিয়ার্সদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে৷ তাদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালের সিসিইউ ইউনিটের ভিতর৷ সেখানে মোট দশজনকে এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে৷ কীভাবে অক্সিজেন বা স্যালাইন চালানো বা রাস্তায় রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে গেলে কী কী করণীয় সে ব্যাপারে তাঁদের হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন চিকিৎসক উদয়শঙ্কর চৌধুরি৷ শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা অথবা ট্রাফিকের ডিউটির পাশাপাশি এবার মুমূর্ষু রোগীদের সাহায্যের সুযোগ পাওয়ায় খুশি প্রশিক্ষণরত সিভিক ভলান্টিয়ার্সরা৷

আরও পড়ুন: খেলনার পিস্তল ভেবে মাকে গুলি, এলাকায় চাঞ্চল্য

প্রশিক্ষণরত সিভিক ভলান্টিয়ার্স কর্মী লতা বর্মন জানিয়েছেন, এই ধরণের কাজে যুক্ত হতে পেরে ও প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ পেয়ে তাঁরা ভীষণই খুশি৷ এতদিন রাস্তায় দাঁড়িয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সাধারণ মানুষকে সহযোগিতার কর্তব্যই তাঁরা পালন করে এসেছেন৷ এবার সেই কাজের পাশাপাশি মুমূর্ষু রোগীদের সেবা করার সুযোগ পাওয়ায় গর্বিত৷

বালুরঘাট জেলা হাসপাতালের সুপার তপন বিশ্বাস জানিয়েছেন, জেলায় এতদিন সিসিইউ সুবিধাযুক্ত কোনও অ্যাম্বুলেন্স ছিল না৷ জেলা হাসপাতাল থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় কাউকে কলকাতার কোনও হাসপাতালে নিয়ে যেতে হলে বাইরে থেকে সিসিইউ অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে এনে কয়েক হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে নিয়ে যেতে হত৷ সরকারের এই অত্যাধুনিক সুবিধাযুক্ত অ্যাম্বুলেন্স পাওয়ায় দক্ষিণ দিনাজপুরের মানুষের খুবই উপকারে লাগবে বলেও হাসপাতাল সুপার জানিয়েছেন৷

আরও পড়ুন: চোখের পাতা ঘন করার তিনটি ঘরোয়া উপায়

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেবাশিস নন্দী জানিয়েছেন, হাসপাতালে যেসব মুমূর্ষু রোগীদের বাইরে কোনও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন তাঁদের ক্ষেত্রেই এই অ্যাম্বুলেন্সটি ব্যবহার করা হবে৷ রোগীদের হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়ার সময় সিসিইউ-এর পরিষেবা দিতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মহিলা ও পুরুষ দু’জন সিভিক ভলান্টিয়ার সেখানে থাকবেন৷ এর জন্য মোট দশজনকে বেছে নেওয়া হয়েছে৷ যাঁদের বালুরঘাট হাসপাতালে প্রশিক্ষণ চলছে৷

----
--