ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা ও পুরুলিয়া: বাংলার উন্নয়নে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া টাকা কোথায় গেল? পুরুলিয়ার শিমুলিয়ায় লাখো মানুষের সমাবেশ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই কৈফিয়ৎই চাইলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ অমিত শাহর কথায়, ‘‘বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক প্রকল্পে কেন্দ্রের দেওয়া ৩ লক্ষ ৬০ হাজার কোটি টাকা কোথায় গেল? কার পকেটে ঢুকল ওই টাকা?’’ উত্তর দিয়েছেন নিজেই৷ বলেছেন, ‘‘কেন্দ্রীয় প্রকল্পের উন্নয়নের টাকা মানুষের কাছে পৌঁছায়নি৷ ওই টাকা খেয়েছে তৃণমূলের সিন্ডিকেট৷’’

এদিন দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ ভিড়ে ঠাসা ময়দানের মঞ্চে বক্তব্য রাখতে ওঠেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি৷ টানা ২৫ মিনিটের ভাষণে আগাগোড়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর সরকারকে তুলোধনা করেন৷ বলেন, ‘‘বাংলায় মাফিয়ারাজ চলছে৷ তাই এই সরকারকে বদলানো জরুরী৷’’ যা শুনে হাততালিতে ফেটে পড়েছে সভাস্থল৷ মমতার জমানায় ৭ বছরে বাংলায় যে কোনও উন্নয়ন হয়নি, তা বোঝাতে পুরুলিয়ার জলকষ্টের প্রসঙ্গ উত্থাপন করেছেন৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে কৈফিয়তের সুরে বলেছেন, ‘‘আপনি বলছেন, বাংলায় উন্নয়নের জোয়ার বইছে৷ কোথায় উন্নয়ন? তাহলে স্বাধীনতার ৭০ বছর পরেও পুরুলিয়ার মহিলাদের কেন পায়ে হেঁটে ৫ কিলোমিটার দূর থেকে জল আনতে হয়? কেন বাসিন্দাদের এলাকায় পানীয় জলের ব্যবস্থা হয়নি? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আপনাকে এর জবাব দিতে হবে৷’’

Advertisement

পঞ্চায়েত ভোটের প্রাক্কালে পুরুলিয়ার বলরামপুরে খুন হয়েছিলেন বিজেপি কর্মী জগন্নাথ কুন্ডু৷ যদিও পঞ্চায়েত ভোটে পুরুলিয়া অভাবনীয় সাফল্য পায় বিজেপি৷ তারপরই বলরামপুরে পর পর দু’দিন বিজেপি কর্মী ত্রিলোচন মাহাতো ও দুলাল কুমারের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়৷ অভিযোগ, এলাকায় সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করতেই ওই দুই বিজেপি কর্মীকে খুন করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে দিয়েছে শাসকদল৷ এদিন মঞ্চে নিহত ওই তিন বিজেপি কর্মীর পরিজনদরে সমবেদনা জানান অমিত শাহ৷

মমতার সরকারকে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে অমিত বলেন, ‘‘পঞ্চায়েতে ২ কোটি মানুষকে ভোট দিতে দেয়নি তৃণমূল৷ তবে সন্ত্রাস চালিয়ে ওরা সরকার বাঁচাতে পারবে না৷ মমতার সরকার আর বেশিদিন টিকবে না৷’’ অভিযোগ করেছেন, ‘‘বিজেপির উত্থান দেখে তৃণমূল ভয় পেয়ে গেছে৷ তাই বেছে বেছে বিজেপি কর্মীদের খুন করা হচ্ছে৷ মারধর করা হচ্ছে৷’’ বলেছেন, ‘‘ হিংসা বাংলার সংস্কৃতিতে নেই৷ এই বাংলা বিবেকানন্দ, রামকৃষ্ণ, শ্যামাপ্রসাদের বাংলা৷ কিন্তু গদি টিকিয়ে রাখতে বাংলায় হিংসার রাজনীতি আমদানি করছে তৃণমূল৷’’ অভিযোগ করেছেন, ‘‘পশ্চিমবঙ্গের গরিবদের জন্য কেন্দ্র সাহায্য দিতে চাইলেও তৃণমূল সরকার তা চাই না৷ ওরা সেই টাকা আত্মসাৎ করছে৷’’

এদিনের সভায় হাজির ছিলেন কয়েক লাখ মানুষ৷ ভিড়ে ঠাসা ময়দানে নিজের ভাষণের শেষে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিক শাহ জনতার উদ্দেশ্যে জানতে চান, আগামী লোকসভায় পুরুলিয়ায় কে জিতবে? লাখো মানুষের ভিড় থেকে সমস্বরে আওয়াজ ওঠে, ‘‘বিজেপি৷’’ এরপরই অমিত শাহ জানতে চান, আপনারা তৃণমূল সরকারকে উৎখাত করতে চান? ফের ভিড় থেকে সমস্বরে আওয়াজ ওঠে, ‘‘হ্যাঁ৷’’ স্বভাবতই চওড়া হাসি সঙ্গী করে পুরুলিয়া থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি৷

----
--