নিউজ ডেস্ক: চারিদিকে ধর্ষণ যেমন ক্রমশ মাথা চারা দিয়ে উঠেছে তেমনই বেড়ে চেলছে উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ক্যাম্পেইন৷ যৌন নিগ্রহ, হেনস্থা, ধর্ষণ নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস দেখাচ্ছেন বহু মেয়েরা৷ মুখ খুলেছেন বহু অভিনেত্রীও৷

হলিউডের #metoo ক্যাম্পেইনের উদ্যোগে অধিকাংশ নায়িকারা নানান প্রযোজক, পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ এনেছেন৷ এবারে প্রকাশ্যে এলো এমি শ্যুমারের ভয়াবহ যৌন হেনস্থার ঘটনা৷ এমির বয়ফ্রেন্ড তাঁকে ঘুমের মধ্যে তাঁর অনুমতি না নিয়েই যৌন সম্পর্কে যায় এবং এইভাবেই অভিনেত্রী তাঁর ভার্জিনিটি লুজ করে৷

সম্প্রতি অপরাহ উইনফ্রের একটি টক শোতে এসে এই ঘটনার খোলসা করেন এমি৷ নায়িকা জানান, তিনি এবং তাঁর বয়ফ্রেন্ড একই বাড়িতে ছিলেন৷ তিনি ঘুমচ্ছিলেন৷ ঘুমন্ত অবস্থার সত্ত্বেও এমির বয়ফ্রেন্ড তাঁকে রেপ করে৷ আর এইভাবেই তিনি তাঁর ভার্জিনিটি হারান৷

সেই মারাত্মক অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেছেন, “আমি সেই সময় ঘুমোচ্ছিলাম৷ আর ঘুমনোর সময় আমার বয়ফ্রেন্ড আমার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক তৈরি করা মানে সেটা রেপেরই সমান৷ ওই ঘটার আগে আমি ভার্জিন ছিলাম৷ তখন রিলেশনশিপের যেই স্টেজে আমার ছিলাম এসব নিয়ে আমরা কোন কথা বলিনি, কোন আলোচনাও করিনি এই বিষয় আমারা৷”

একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “বেসিকলি আমরা সেক্স লাইফে ছিলাম না৷ সাধারণত যেকোন কাপেল প্ল্যান করেই এগোয়৷ আমরা দু’জনে তখন কিছু প্ল্যানও করিনি৷ ও হঠাৎ করে আমার ঘুমের মধ্যেই এরম করে বসল৷ আমার যখন ঘুম ভাঙে আমি তখন ভীষণই রেগে, খুব আঘাত পেয়েছিলাম৷ কখনও ভাবিনি যে যাকে আমি এত বিশ্বাস করি সে কখনও এরম করবে আমার সঙ্গে৷ ও তথন বেশ ঘাবড়ে গিয়েছিলাম৷”

যদিও সম্পূর্ণ বিষয়ের জন্য নিজের প্রেমিকাকে পুরোপুরি কাঠগড়ায় তোলেননি অভিনেত্রী এমি। তাঁর কথায়, “ও ভেবেছিল ঘুমের মধ্যে থাকলেও আমি জানি, বুঝেছি৷ ও আমার রাগ কমাবার চেষ্টা করছিল৷ কিন্তু এটা এমনই একটা ঘটনা যা আমি কখনও ভুলতে পারব না শতচেষ্টা করলেও৷ আমি তো ওকে কোন অনুমতি দিইনি৷ আমায় ঘুমন্ত অবস্থায় রেপ করা হয়েছে৷ এই পদ্ধতিতেই আমি আমার কুমারীত্ব খুইয়ে বসি৷”

এমি গোটা বিষয়টিকে ‘গ্রে এরিয়া রেপ’র সঙ্গে তুলনা করেছেন৷ ঘটনাটি তাঁর কাছে বিশ্বাসঘতকতার মতো৷

----
--