স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আঁধির কোনও প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। দেশের উত্তর পশ্চিমের ১০টি জেলায় আঁধির সতর্কতা জারি হয়েছে। তবে তা কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের অন্যন্য জেলাগুলিতে কোনও প্রভাব ফেলতে পারবে না বলে জানানো হয়েছে৷ এ দিকে, কলকাতায় আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঝড়-বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনাও নেই।

হিমাচল প্রদেশ থেকে দিল্লি হয়ে রাজস্থান অবধি রাজ্যগুলি যখন আঁধি থেকে বাঁচার পথ খুঁজছে, তখন কলকাতার মানুষ খুঁজছে স্বস্তি। অনেকেরই আশা, ধুলোঝড়ের প্রভাব শহরের উপর পড়বে৷ হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস শহরবাসীর এমন আশায় জল ঢেলেছে। হাওয়া অফিসের অধিকর্তা আবহবিজ্ঞানী গণেশকুমার দাস বলেন, “প্রথমত এই আঁধির সঙ্গে আমাদের রাজ্যের কোনও সম্পর্ক নেই। তা ছাড়া পশ্চিমবঙ্গের পুরোপুরি উলটো দিকে চলছে আঁধি। ’’

Advertisement

একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘আঁধির প্রভাব এ রাজ্যে পড়ার জন্য কিছু পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতিরও প্রয়োজন রয়েছে। এটা স্বাভাবিক ভাবেই নেই এই রাজ্যে। কলকাতায়ও তাই এর কোনও প্রভাব পড়বে না।” উলটে এখন অস্বস্তি আরও বৃদ্ধির কথা জানিয়েছেন তিনি৷ তাঁর কথায়, “কলকাতায় যদি বৃষ্টি হয়, তা হলে সেটা ছিটেফোঁটা ছাড়া কিছু হবে না। যা স্থানীয়ভাবে মেঘ জমে হতে পারে। তবে তাতে স্বস্তি মিলবে না। অস্বস্তি আরও বাড়বে।’’

কেন বাড়বে অস্বস্তি? গণেশকুমার দাস বলেন, ‘‘কারণ এখন দক্ষিণ-পশ্চিমের আর্দ্র বায়ু মারাত্মক শক্তিশালী হয়ে রয়েছে। তা ক্রমাগত প্রবেশ করছে কলকাতায়।” মঙ্গলবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে দুই ডিগ্রি বেশি। এ দিন মহানগরের বাতাসে আর্দ্রতার পরিমান ছিল সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৬২ শতাংশ। আগামী ২৪ ঘণ্টায় শহরের তাপমাত্রা থাকবে সর্বোচ্চ ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে সর্বনিম্ন ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।

----
--