হায়দরাবাদ জোড়া বিস্ফোরণে দোষী সাব্যস্ত আরও এক আইএম জঙ্গি

২০০৭ সালের হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের ছবি

হায়দরাবাদ: ২০০৭ সালের হায়দরাবাদ জোড়া বিস্ফোরণে দোষী সাব্যস্ত আরও এক ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গি৷ সোমবার তারিক অঞ্জুম নামে তৃতীয় অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করে বিশেষ এনআইএ আদালত৷ এর আগে এই মামলায় আরও দুই ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গিকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালত৷ আজ তাদের সাজা ঘোষণা করা হবে৷ সরকারি কৌঁসুলি সি সেশু রেড্ডি দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছেন৷ রায় যাই হোক না কেন সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দোষীরা উচ্চআদালতে আবেদন করবে বলে জানা গিয়েছে৷

হায়দরাবাদ জোড়া বিস্ফোরণে দোষী সাব্যস্ত তৃতীয় অভিযুক্ত তারিকের বিরুদ্ধে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে৷ বিস্ফোরণের আগে ও পরে দিল্লি ও অন্যান্য জায়গায় জঙ্গিদের আশ্রয় দেয় সে৷ বাকি দুই জনের সঙ্গে এদিন তারিকেরও সাজা ঘোষণা করা হবে৷

এর আগে ৪ সেপ্টেম্বর এনআইএ আদালত দুই ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গি অনীক সাফেক সইদ ও ইসমাইল চৌধুরীকে দোষী সাব্যস্ত করে৷ চেরলাপল্লি সেন্ট্রাল জেলের বিশেষ আদালত ফারুখ সরফুদ্দিন তারকিশ ও মহম্মদ সাদিক ইসরার নামে দু’জনকে এই মামলা থেকে অব্যহতি দেয়৷ শুধু তারিকের ভাগ্য ঝুলে ছিল সোমবার অবধি৷ তবে বিস্ফোরণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত রিয়াজ ও ইকবাল এখনও পলাতক৷

- Advertisement -

আরও এক সরকারি কৌঁসুলি এস সুরেন্দ্রর জানান, অনীক ও চৌধুরী গোকুল ঘাট ও লুম্বিনী পার্কে বিস্ফোরণে দোষী সাব্যস্ত হয়েছে৷ তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারা ও অস্ত্র আইন এবং ইউএপিএ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়৷ প্রসঙ্গত গোকুল ঘাটে সেদিনের বিস্ফোরণে ৩২ জন মানুষ প্রাণ হারান৷ আহত হন ৪৭ জন৷

অন্যদিকে লুম্বিনী পার্কের বিস্ফোরণে ১২ জন মারা যান৷ আহত হন ২১ জন৷ তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে বিস্ফোরণের পিছনে হাত রয়েছে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের৷ চার্জশিটে নাম থাকা ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা রিয়াজ ও ইকবাল ভাটকল এবং আমির রেজা খান পলাতক৷ ভাটকল ভাইরা পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছে বলে জানা যায়৷

Advertisement
---