ভারতীর অবদানের জন্য প্রতিদান দিচ্ছেন দিলীপ! গেরুয়ায় ‘গটআপ’ চর্চা

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: ‘অবদানে’র সৌজন্যে মিলছে ‘প্রতিদান’৷ আর, এই সৌজন্যের জেরেই এখনও চলছে ‘গটআপ গেম’৷ এবং, এই ‘গেম’ চলছে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষের মধ্যে৷

এমনই অভিযোগ উঠছে এ বার গেরুয়া শিবিরের বিক্ষুব্ধ বিভিন্ন অংশের চর্চায়৷ আর, এই ধরনের অভিযোগকে কেন্দ্র করে রাজ্য বিজেপির নেতৃত্বের প্রতি যেমন গেরুয়া শিবিরের বিভিন্ন অংশের ক্ষোভ আরও বেড়ে চলেছে৷ তেমনই, গেরুয়া শিবিরে অন্তর্দ্বন্দ্বের জেরে বিতর্ক আরও জোরদার হচ্ছে বলেও মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের বিভিন্ন অংশ৷

আরও পড়ুন: মুখে বন্দুক গুঁজে তৃণমূলে যেতে বাধ্য করেছিলেন, ভারতীর বিজেপি যোগে বিতর্ক

- Advertisement -

সাম্প্রতিক পরিস্থিতির জেরে পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ এখন ‘গোপন’ আস্তানায় রয়েছেন বলে বিভিন্ন মহল মনে করছে৷ তবে, এই ‘গোপন’ আস্তানা এবং সাম্প্রতিক ভারতী ঘোষ-কাণ্ডের পিছনে ওই ‘গটআপ গেম’ চলছে বলেই গেরুয়া শিবিরের বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায় অভিযোগ তোলা হচ্ছে৷ কিন্তু, এই ‘গটআপ গেমে’র পিছনে কারণ হিসাবে কোন ধরনের ‘প্রতিদানে’র অভিযোগ উঠছে বিজেপির বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায়?

রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে খড়্গপুর কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত হয়েছেন৷ গেরুয়া শিবিরের বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের ওই সব চর্চায় এমনই অভিযোগ উঠছে যে, এই কেন্দ্র থেকে রাজ্য বিজেপির সভাপতির জয়লাভের পিছনে পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন ওই পুলিশ সুপারের ‘অবদান’ রয়েছে৷ এবং, অভিযোগ উঠছে, দিলীপ ঘোষের জন্য ভারতী ঘোষের এই ‘অবদানে’র পিছনে কারণ হিসাবে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ স্তরের ‘নির্দেশ’৷

আরও পড়ুন: ‘সরকার কে চালাচ্ছেন, মুখ্যমন্ত্রী না তৃণমূলের ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীরা?’

তবে, শুধুমাত্র এই ধরনের ‘অবদানে’র বিষয়ে অভিযোগও নয়৷ একই সঙ্গে বিজেপির বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায় ওই ‘গটআপ গেমে’র পিছনে কারণ হিসাবে এমনও অভিযোগ উঠছে যে, সম্প্রতি সবং বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনেও ভারতী ঘোষের ‘অবদান’ রয়েছে৷ এই কেন্দ্রের উপনির্বাচনে কোন ধরনের ‘অবদানে’র অভিযোগ উঠছে? গেরুয়া শিবিরের বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায় এমনই অভিযোগ উঠছে, সবং বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে কোনও কোনও বুথে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোটপ্রাপ্তির হার খোদ ঘাসফুল শিবিরেরই প্রত্যাশা পূরণ করেনি৷

আরও পড়ুন: শৃঙ্খলারক্ষায় বিজেপির কমিটি ‘ঠুঁটো জগন্নাথ’, গেরুয়ায় জোর বিতর্ক

বিজেপির বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের এমনই অভিযোগ, ভারতী ঘোষ তখন পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ছিলেন৷ তাঁর ‘অবদানে’র জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের ভোটপ্রাপ্তির হার ওই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিল৷ গেরুয়া শিবিরের বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায় এই বিষয়টিও উঠছে, এই সবং বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের পর থেকেই মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ভারতী ঘোষের ‘সম্পর্কে’ চিড় ধরেছে বলে বিভিন্ন ঘটনার জেরে প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে৷

আরও পড়ুন: বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বে নতুন মুখ, বিক্ষুব্ধদের আশ্বাস কেন্দ্রীয় নেতার

ভারতী ঘোষের ওই ‘অবদানে’র বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী অবগত হওয়ার কারণে ভারতী ঘোষ-কাণ্ডের সূত্রপাত বলেও বিজেপির বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের চর্চায় প্রকাশ পাচ্ছে৷ শুধুমাত্র তাই নয়৷ পশ্চিম মেদিনীপুরে পুলিশ সুপারের পদে থাকাকালীন ভারতী ঘোষের নেতৃত্বে তোলাবাজি চলত বলেও অভিযোগ উঠছে৷ এবং, গেরুয়া শিবিরের ওই সব অংশে এমনও চর্চা চলছে, ওই তোলাবাজির বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের জনপ্রিয় এক নেতা, যিনি বর্তমানে রাজ্যের মন্ত্রী, তিনিও অবগত ছিলেন৷ কিন্তু, তিনিও সেভাবে কিছু করতে পারছিলেন না৷

আরও পড়ুন: বাবুল-রূপা থাকলেও ত্রিপুরায় মুকুল রায়কে ‘সাইড’ করল বিজেপি

আর, এমনই বিভিন্ন বিষয়ের উপর ভর করে বিজেপির বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশে খোদ দলের রাজ্য নেতৃত্ব তথা রাজ্য সভাপতিকে কেন্দ্র করে এমনই অভিযোগ উঠছে যে, ভারতী ঘোষের ওই সব বিভিন্ন ‘অবদানে’র সৌজন্য হিসাবে ‘প্রতিদানে’র বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ৷ এবং, ওই অভিযোগ অনুযায়ী, রাজ্য বিজেপির সভাপতি এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন এই পুলিশ সুপারের ‘গটআপ গেমে’র কারণে ভারতী ঘোষ-কাণ্ড প্রকাশ্যে এসেছে৷ এবং, ওই সব ‘অবদানে’র সৌজন্যে ‘প্রতিদান’ দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠছে৷

আরও পড়ুন: ‘স্বার্থসিদ্ধি’র লক্ষ্যে নেতৃত্বে এখনই বদল নয়: তোপ গেরুয়া চর্চায়

শুধুমাত্র তাই নয়৷ এই ‘প্রতিদানে’র সৌজন্যে ভারতী ঘোষ এখন ‘গোপন’ আস্তানায় রয়েছেন বলেও অভিযোগ উঠছে খোদ বিজেপিরই বিভিন্ন বিক্ষুব্ধ অংশের ওই সব চর্চায়৷ কিন্তু, গেরুয়া শিবিরের ওই সব অংশের চর্চা অনুযায়ী, এমন বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে কী বলছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ? এমন বিভিন্ন অভিযোগের কোনও ভিত্তি কি আদৌ রয়েছে? এই বিষয়ে রাজ্য বিজেপির সভাপতির বক্তব্য জানার জন্য তাঁর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়৷ তবে, তিনি ফোন কল না ধরায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি৷

আরও পড়ুন: দুঁদে ‘ব্যবসায়ী’ হবেন নেতারা, বাংলায় প্রথম আইপিএল-কর্মশালা

Advertisement ---
---
-----