গৌরব গগৈ আসতেই হত্যে দিলেন অধীর-বিরোধীরা

দেবযানী সরকার, কলকাতা: ব্যাপারটা আনকোরা নতুন কিছু নয়৷ ঐতিহ্যটা বজায় রয়েছে সেই যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্ত বনাম সুভাষচন্দ্র বসুর সময় থেকে৷ অতএব, সেইমতো আবারও প্রকাশ্যে এল প্রদেশ কংগ্রেসের ঘরোয়া কোন্দল৷ এআইসিসি-র (পড়ুন, রাহুল গান্ধীর) হয়ে পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের দেখভালের জন্য নতুন ভারপ্রাপ্ত গৌরব গগৈ-এর কাছে অধীর চৌধুরীকে রাজ্য সভাপতির পদ থেকে সরানোর দাবি জানালেন দলীয় নেতৃত্বের একাংশ৷ পশ্চিমবঙ্গে গৌরব গগৈ-এর প্রথম সফরেই দলের অভ্যন্তরে এই বিদ্রোহ অধীর চৌধুরীর অস্বস্তি বাড়াল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷

এআইসিসির ইনচার্জ হওয়ার পর সোমবার প্রথম পশ্চিমবঙ্গে এলেন অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ-এর পুত্র গৌরব গগৈ৷ ১৮ ও ১৯ মে, এই দুদিন প্রদেশ নেতৃ্ত্বের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি৷ এদিন প্রথমার্ধে দলের জেলা সভাপতি ও দ্বিতীয়ার্ধে বিধায়ক ও সাংসদদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি৷ তার মধ্যেই ছিল মধ্যাহ্নভোজনের বিরতি৷ সেইসময় সাংবাদিক বৈঠক করেন এআইসিসি-র নতুন ইনচার্জ ৷ বৈঠক শুরু হওয়ার আগে উত্তর ও মধ্য কলকাতার তরফ থেকে সাংবাদিকদের হাতে গৌরব গগৈকে দেওয়া একটি দাবিপত্রের প্রতিলিপি তুলে দেওয়া হয়৷ সেখানে স্পষ্ট লেখা রয়েছে, অবিলম্বে প্রদেশ সভাপতির পদ থেকে অধীর চৌধুরীকে সরাতে হবে৷

তাঁদের দাবি, পঞ্চায়েত ভোটের ব্যর্থতার সমস্ত দায় বর্তমান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির৷ এমনকী, এআইসিসি-র নতুন কমিটিতে অধীর চৌধুরী নিজের লোকেদের রেখেছেন বলেও অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা৷ যদিও বিষয়টিতে গুরুত্ব দিতে নারাজ অধীর চৌধুরী নিজেই৷ তাঁর বক্তব্য, এটা কোনও ব্যাপারই নয়৷ আমিই বরং গৌরবজিকে অনুরোধ করেছিলাম, আমার অনুপস্থিতিতে সবার সঙ্গে কথা বলতে৷ তাতে আমার বিরুদ্ধে যাঁর যা ক্ষোভ রয়েছে সেটা প্রকাশ্যে আসবে৷

উল্লেখ্য, মাসখানেক ধরেই প্রদেশ সভাপতি পদে রদবদলের একটা কথা শোনা যাচ্ছিল৷ বিধান ভবন সূত্রের খবর ছিল, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে অধীর চৌধুরীর অপসারণ সময়ের অপেক্ষামাত্র৷ চলতি সপ্তাহেই নতুন নাম ঘোষণা হতে পারে৷ এই জল্পনার মধ্যেই এআইসিসি-র নতুন ইনচার্জের কাছে প্রদেশ কংগ্রেসের একটি লবির অধীর-বিরোধী আবেদন অধীর ঘনিষ্ঠদেরও অস্বস্তি বাড়াল বলেই মনে করছে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷

এ ব্যাপারে গৌরব গগৈকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের দলে ক্ষোভ-বিক্ষোভের সুযোগ আছে৷ যে কেউ তাঁর মত প্রকাশ করতে পারেন৷ এটা লোকতন্ত্রের ঐতিহ্য৷ বিজেপি দলের মতো আমরা চলি না৷’’

----
-----