গরীবের মুখে অন্ন তুলে দিয়ে রাণী এলিজাবেথের দেশে সম্মানিত এই ভারতীয়

নয়াদিল্লি: অঙ্কিত কাওয়াত্রা৷ বয়স মাত্র ২৫৷ এই বয়সেই তিনি বাকিংহাম প্যালেসে খোদ রানী এলিজাবেথের থেকে তিনি পাবেন এক বিশেষ পুরষ্কার৷ দেশ জুড়ে বেড়ে চলা দারিদ্র্য এবং ক্ষুধার সমস্যা সমাধান করতে তাঁর এই গবেষনা কার্যত নজির গড়েছে বিশ্বজুড়ে৷ একদিকে বড়লোকদের বিলাসিতায় বেড়ে চলেছে খাদ্য অপচয়ের পরিমাণ৷ অপরদিকে না খেতে পেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে খুদে শিশুরা৷ এই সমস্ত না খেতে পাওয়া খুদে থেকে বৃদ্ধেদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য এগিয়ে এলেন অঙ্কিত৷

ভারতের মতন একটি উন্নয়নশীল দেশের একটি খুব সাধারণ সমস্যা দারিদ্র্য৷ এই দারিদ্র্যের জেরেই মানুষ অপুষ্টিতে ভোগে৷ সেই ক্ষুধা এবং অপুষ্টির সমস্যা সমাধান করতেই এগিয়ে এসেছিলেন ২৫ বছর বয়সী এই যুবক৷ আগামী ২৯জুন অঙ্কিত এই বিশেষ পুরষ্কারটি পাবেন৷ এই বিশেষ পুরস্কারটির নাম কুইনস ইয়ং লিডারস অ্যাওয়ার্ড৷

কাওয়াত্রা ২০১৪সালে তাঁর চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন এবং এরপরই একটি নন প্রফিট সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন৷ এই বিশেষ প্রতিষ্ঠানটির নাম ফিডিং ইন্ডিয়া৷ এই সংস্থাটি দেশ জুড়ে ক্ষুধা সমস্যা সমাধান করার জন্য এগিয়ে এসেছে৷ তবে, শুধু তাই নয়৷ এর পাশাপাশি অপুষ্টি এবং হোটেলে কিংবা কোনও অনুষ্ঠান বাড়িতে প্রচুর পরিমাণে খাওয়ার নষ্ট হয়৷ সেই নষ্ট হয়ে যাওয়া খাওয়ারের পরিমাণ দেখেই কার্যত তাঁর মাথায় আসে বিষয়টি৷ তাই এই বিষয়টি নিয়েই তিনি আদাজল খেয়ে নেমে পড়েন কাজে৷

- Advertisement -

এই বিষয়ে অঙ্কিত বলেন, ‘ভারতে প্রতি বছরে নষ্ট হওয়া খাবারের পরিমাণ শুনলে আপনি আঁতকে উঠবেন৷ প্রতি বছর প্রায় ৬৭মিলিয়ন টন খাওয়ার অপচয় হয়৷ কিন্তু কোনও সংস্থাই বা কোনও ব্যক্তি এই সমস্যাটি সমাধান করার জন্য এগিয়ে আসেনি৷’ তাই তিনিই এগিয়ে এসেছেন এই সমস্যাটি সমাধান করার জন্য৷ ৪৩টি শহরে ৪হাজার ৫০০জন ভলেন্টিয়ার কাজ করছে৷ আর এরাই এই সমস্ত শহরে শিশু, মহিলা এবং বয়স্কদের মুখে অন্ন তুলে দিচ্ছে৷

Advertisement ---
-----